BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

Category Archives: Bangla স্ট্যাটাস

ধর্ম বিদ্বেষী কিংবা ধর্মকে আক্রমণ করে লিখা-লিখি!

ধর্ম বিদ্বেষী কিংবা ধর্মকে আক্রমণ করে লিখা-লিখির মধ্যে কোন মুক্ত মনার প্রকাশ ঘটে না। আছে নিজেকে বিতর্কিত তারকা বানানোর চেষ্টা, আছে ভিন দেশী ইয়াহুদিদের এজেন্ট হিশাবে কাজ করে মানুষের মধ্যে ভিবেদ সৃস্টি করার অপ চেস্টা। একজন প্রকৃত সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ কখনোই ধর্মের বিরোধিতা করে নিজেকে বিতর্কিত বানানোর চেস্টায় লিপ্ত থাকেন না। । । থাকেন তারাই,

বাসার থেকে অফিসই ভাল, অর্থাৎ মানুষ অভ্যাসের দাস!

আজকে হাফ ডে বাসায় ছিলাম, দুপুরে খাবারের পর অফিসে আসলাম। কিন্তু অদ্ভুত ব্যপার হচ্ছে আজকেই খুব বেশীই বেশি ক্লান্ত লাগছে। মনে হচ্ছে বহু যুগ ধরে অফিসে বসে আছি। আবার থেমে থেমে মাথাও ব্যাথা করছে।

আজকে হাফ ডে বাসায় ছিলাম, দুপুরে খাবারের পর অফিসে আসলাম। কিন্তু অদ্ভুত ব্যপার হচ্ছে আজকেই খুব বেশীই বেশি ক্লান্ত লাগছে। মনে হচ্ছে বহু যুগ ধরে অফিসে বসে আছি। আবার থেমে থেমে মাথাও ব্যাথা করছে। মোরালঃ বাসার থেকে অফিসই ভাল, অর্থাৎ মানুষ অভ্যাসের দাস! আজকে হাফ ডে বাসায় ছিলাম, দুপুরে খাবারের পর অফিসে আসলাম। কিন্তু অদ্ভুত

দুই বাংলার সম্পর্ক উন্নয়ন, নাকি কলকাতার সিনেমার অবাধ মার্কেট সৃষ্টি ?

indian army rape them

সম্প্রতি মমতা বানর্জী বাংলাদেশে এসে তিস্তার পানি নামক স্বপ্নের কথা শুনিয়েছে। কিন্তু তিস্তার পানির কথা বলা মমতার আসার মূল উদ্দেশ্য ছিলো বলে মনে হয়নি, তার সফর সঙ্গী ও আলোচনার বিষয়বস্তু দেখে মনে হয়েছে ভিন্ন কিছু। দুই বাংলার সম্পর্ক উন্নয়ন, নাকি কলকাতার সিনেমার অবাধ মার্কেট সৃষ্টি ? সম্প্রতি মমতা বানর্জী বাংলাদেশে এসে তিস্তার পানি নামক স্বপ্নের

আঁকা-বাঁকা স্বপ্নের সিঁড়ি

আঁকা-বাঁকা স্বপ্নের সিঁড়ি

আঁকা-বাঁকা স্বপ্নের সিঁড়ি কোন এক আঁকা-বাঁকা স্বপ্নের সিঁড়ি বেয়ে, আমি চলেছি হেঁটে, এক অজানা গন্তব্যের পথে। স্বপ্নের রঙীন ডানায়, আজ বাস্তবতার বোঝা। জানি, সামনে কঠিন পথ। তবু ঘুরে দাড়াবো, তবু স্বপ্ন দেখবো, রক্ত আগুনে পোড়াব আজ দূর্বলতার পাপ। সূর্যের চোখে চোখ রেখে, শপথ নিয়েছি আরেক সূর্য হবার, নতুন ইতিহাস লেখার।   আমি ফোটোগ্রাফার নই বরং

স্বপ্নের দরজা – স্বপ্ন কোথায় বলো?

এই অ্যালবামটিতে শুধু আমার মোবাইল এবং বন্ধুদের DSLR-এ আমার তোলা এবং ইডিট করা কিছু ছবি ধারাবাহিক ভাবে আপলোড দিব । যদিও আমি ফোটোগ্রাফার নই তারপরও মাঝেমধ্যে দু-একটা ছবি তুলতে ভাল লাগে। এই অ্যালবামে থাকবে আমার তুলা কিছু ছবি। যদিও আমি ফোটোগ্রাফার নই শুধুই শখেরগ্রাফার! যদিও আমার DSLR নেই তবুও এই দুঃসাহস । খুব যে ভাল তুলতে পারি তা কিন্তু নয় তবে কেউ যদি বলেন ছবিটা খুব সুন্দর তবে শুনতে ভালই লাগে, এই আর কি। তবে খারাপ বললেও খুব বেশী কস্ট পাবনা। আপনার মতামত মন্তব্যে জানাতে পারেন। আশা করি ছবিগুলো ভাল লাগবে।

স্বপ্নের দরজা – স্বপ্ন কোথায় বলো?   স্বপ্নের দরজা সাজাই যতো, স্বপ্ন কোথায় বলো? পথের মাঝে ধুলো কুড়াও, ছড়াও অন্ধ আলো। আকাশ পানে তাকিয়ে খোঁজো, সুরের অন্তমিল- হ্রদয় মাঝে তাকিয়ে দেখো, হাজার গোঁজামিল! স্বপ্ন বলেই স্বপ্নের দরজা, যায়না যাওয়া চলে। বন্ধু তোমার দরজাটি খুজো, স্বপ্ন খোঁজার ছলে..   আমি ফোটোগ্রাফার নই বরং শখেরগ্রাফার!   আমি

বহু দূর একা পথ চলা, রোঁদ খাট্টা ইটের শহরে বড্ড নিঃসঙ্গ আমি!

সরকার অন্যায় কাজে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে ব্যবহার করেছে বিধায় নারায়ণগঞ্জের মতো ঘটনা ঘটানোর সাহস পেয়েছে র‍্যাব। গুম-খুনে র‌্যাবের সম্পৃক্ততা কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা না। তারা এখন যেভাবে বেআইনি কাজ করছে তাতে একটা সময় এটা মহামারি আকার ধারণ করবে। তাদের আচরন দিন দিন অনেকটাই রক্ষক থেকে ভক্ষকের দিকে যাচ্ছে। অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করলে এই অপরাধ কমে আসবে।

রাস্তার বেওয়ারিশ ধুলো কণায় খামোখাই আমার স্বপ্নগুলো অজানায় উড়ে যায়। আমি শত কষ্টে নিজেকে আগলে রাখি, তবুও ওই নিস্প্রান ধূলার চাদর আমার স্বপ্নের উপর অদৃশ্য আবরন জুড়ে দেয় ,…। ঢাকা পরে আমার সুপ্ত অনুভূতিগুলো। বড় বড় দালান আর গ্রিন রোডের বিদঘুটে জ্যাম এ অনেক টাই ক্লান্ত আমি! যখন কোথাও খোলা আকাশ খুঁজি, তখন ও গাড়িগুলোর

যদি প্রশ্ন করা হয় কোনটা বেশী সহজ জীবনে যুদ্ধ করা না কি যুদ্ধ না করে হার স্বীকার করা…? উত্তরটা সহজ হার মানা আর সাড়া জীবন আফসুস করা…?

বেরিয়ার রিফ ন্যাশনাল পার্ক, অস্ট্রেলিয়া !

যদি প্রশ্ন করা হয় কোনটা বেশী সহজ জীবনে যুদ্ধ করা না কি যুদ্ধ না করে হার স্বীকার করা…? উত্তরটা সহজ হার মানা আর সাড়া জীবন আফসুস করা…। আর এই পৃথিবীর বেশির ভাগ মানুষই তাই করে। খুব অল্প কিছু মানুষ জীবন যুদ্ধে অংশগ্রহন করে আর এদের বেশীর ভাগই সফল হয়! । । তাই আমার মতে যুদ্ধটা

পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু আবিস্কার এবং আমার কিছু টিউন!

বহনযোগ্য অসাধারন একটি ঘড়ঃ এই ঘড়টির পছন্দ হয় কিনা? বহনযোগ্য অসাধারন এই ঘড়টির যে কোন স্থান থেকে যে কোন স্থানে মুহুর্তের মধ্যেই সরিয়ে নেওয়া সম্ভব। এটি একটি চলমান পিক-আপের উপর বানানো হয়েছে ফলে ভ্রমন পিয়াসু মানুষের জন্য এমন একটি ঘড় হতে পারে আলাদিনের চেড়াগের মতই!

আজকের পোস্টটি অদ্ভুত কিছু আভিস্কার নিয়ে সাজিয়েছি। প্রথমেই আলোচনা করব Quadski নামক একটি অদ্ভুত বাইক নিয়ে। দ্বিতীয়তে আলোচনা করব “শোলার পাওয়ার টেন্ট” নামক অদ্ভুত একটি তাবু নিয়ে। তৃতীয়েতে বহনযোগ্য ঘড় নিয়ে এবং সবশেষে থাকছে সুর্যের আলোয় চলা একটি জাহাজ সম্পর্কে। Quadski শুধু বাইকই নয় বরং স্পীড বোটও বটেঃ Quadski নামক এই বাইকটি পানি এবং ভুমি

স্যামসাং বনাম অ্যাপল, স্যামসাংকে ১১৯ মিলিয়ন ডলার জরিমানা!

অ্যাপলের দুটি প্যাটেন্ট নকল করার অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার আরেক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ১১ কোটি ৯৬ লাখ ডলার জরিমানা! অর্থাৎ স্যামসাংকে আবারও ১১৯ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলকে। তিন বছর ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের বিভিন্ন বিষয়ে মামলা চলছে। http://www.technobuffalo.com/wp-content/uploads/2012/11/apple-vs-samsung-court-011.jpg এর মধ্যে ভিডিও আদান প্রদান ও মোবাইলের ক্যামেরা ব্যবহারের বিষয়ে অ্যাপলের বিরুদ্ধে পেটেন্ট আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে স্যামসাং। স্যামসাং এর দাবী অ্যাপলের আইফোন ফাইভ স্যামসাং গ্লাক্সি-এর ব্লুটুথে আদান প্রদান করার অ্যাপস নকল করেছে। পাশাপাশি আইফোন ফাইভ-এর ক্যামেরার অ্যাপ্স এর আইডিয়াটাও স্যামসাং গ্লাক্সি। ফলে অ্যাপলের আইফোন ফাইভের বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানিয়েছে স্যামসাং। বলা বাহুল্য মোবাইল ফোন কিংবা স্মার্ট ফোন যাই বলি না কেন বিক্রি এবং জনপ্রিয়তার দিক থেকে এখন কোরিয়ার স্যামসাং-ই সবচেয়ে এগিয়ে আছে। অপরদিকে গুগোলের Android এর কল্যানে স্যামসাং-এর স্যামসাং গ্লাক্সিই বলা যায় বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় হ্যান্ডসেট। http://images.dailytech.com/nimage/US_Apple_v_Samsung_Courtroom_Wide.jpg যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলেরও রয়েছে পন্যের মান নিয়ন্ত্রনের উপর বিশেষ সুনাম এবং পাশাপাশি অ্যাপলের ব্রান্ডিং লেভেলও হাই। অপরদিকে অ্যাপলের রয়েছে নিজেস্ব অপারেটিং সিস্টেম ম্যাক ওস! এদিক থেকে অবস্য ম্যাকই এগিয়ে। http://www.technobuffalo.com/wp-content/uploads/2012/11/apple-vs-samsung-court-001-640x480.jpg শেষে একটা ছবির মাধ্যমে স্যামসাং বনাম অ্যাপল এবং সাথে নোকিয়ার বর্তমান পরিস্থিতি স্পস্ট করছি। আর সময় পেলে আমার ব্লগ থেকে ঘুরে আসতে ভুলবেন না! আজ এটুকুই মামলার পরবর্তি রায় নিয়ে আবার ফিরে আসব আশা করছি ততক্ষন পর্যন্ত সবাই ভাল থাকবেন। http://youngblah.com/wp-content/uploads/2012/09/Apple-Vs-Samsung-Vs-Nokia.jpg বর্তমানে স্যামসাং বনাম অ্যাপল যুদ্ধে যখন পৃথিবী তোলপাড় ঠিক এমন সময় নিরবে নিবৃতে যেন নোকিয়ার সব আয়োজনই ব্যার্থ। অথচ তিন-চার বছর পুর্বেই সিমব্রিয়ান অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে নোকিয়াই ছিল সবার সামনে।

অ্যাপলের দুটি প্যাটেন্ট নকল করার অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার আরেক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ১১ কোটি ৯৬ লাখ ডলার জরিমানা! অর্থাৎ স্যামসাংকে আবারও ১১৯ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলকে। তিন বছর ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের বিভিন্ন বিষয়ে মামলা চলছে। এর মধ্যে ভিডিও আদান প্রদান ও মোবাইলের ক্যামেরা

যে পাঁচটি কাজ একজন ফ্রিল্যান্সারের করা উচিৎ নয়! (নতুনদের জন্য!)

ক্রিয়েটিভ অ্যাডভান্স অ্যাডভান্স এসইও কোর্স-এ অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন।

বর্তমানে আউটসোর্সিং মার্কেটগুলোতে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথমদিকে। ফলে ঘড়ে ঘড়ে দিন দিন বাড়ছে ফ্রিল্যান্সারের সংখ্যা। বাংলাদেশি তরুণেরা যেমন ঘরে বসে লাখ টাকা আয় করছেন তেমনি বহিবিশ্বে বাংলাদেশের সুনাম ছড়িয়ে দিচ্ছে এই আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে। আমার আজকের এই পোস্টি শুধুমাত্র তাদেরই জন্য। আমার এই পোস্টটি সেই সকল ফ্রিল্যান্সারের জন্য যারা তাদের দক্ষতা এবং শ্রমের বিনিময়ে আমাদের দেশের

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার – ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত!

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার - ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন। স্কুটার বা স্কুটি আমাদের মাঝে ভেসপা নামেও পরিচিত। সম্প্রতি স্যান্স ফ্রান্সিস্কর একটি ছোট মোটর বাইক কোম্পানি লীট মোটরস এমন একটি স্কুটি আবিস্কার করেছে যা বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং পাশাপাশি বাইক তো বাইকি গাড়ির থেকেও বেশী গতিতে ছুটতে পারবে। পাশাপাশি মালপত্রও অনেক বেশী বহন করতে সক্ষম। https://www.youtube.com/watch?v=nwg3Pieoms4 দ্যা সিটি কার, যদিও নাম কার কিন্তু আসলে কার (গাড়ি) নয়, এটিও এক প্রকার মোটর সাইকেল। এটিও লীট মোটরস নামক কোম্পানিটির আবিস্কার। তবে এই মোটর সাইকেলে বসে রোঁদে পুড়ে মরার ভয় নেই। থাকছে এসি। পাশাপাশি এটিও বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং গাড়ির মতই দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম। বাইকের সাথে এর মূল মিল হচ্ছে এটিও বাইকের মতই দুই চাকার যান। এই বাইকটি প্রতি ঘন্টায় ১৬০ কিঃমিঃ অতিক্রম করতে পারবে। https://www.youtube.com/watch?v=mY9PV6Xeus0 বাইকের নতুন প্রজন্মের নাম হতে পারে রাইনো। রাইনো নামে দু-চক্র যান বা মোটর সাইকেল হলেও বাস্তবে এর রয়েছে একটি মাত্র চক্র বা চাকা। অদ্ভুত এই আবিস্কারটির সুফলে বাইকারদের জীবন থেকে মুছে যাবে যানজটের সমস্যা, পাশাপাশি পার্কিং সমাস্যা সহ ইত্যাদি। রাইনো হতে পারে বাইকের নিরাপদ সমাধান কারন এর রয়েছে নিজেস্ব ব্যাল্যানসিং সিস্টেম অর্থাৎ রাইনো নামক বাইকটি নিজেই নিজের ব্যালেন্স রাখতে সক্ষম। রাইনো প্রতি ঘন্টায় ২৭ মাইল অতিক্রম করতে সক্ষম। এদিক থেকে অবশ্য রাইনো অন্য বাইকগুলো থেকে অনেক পিছিয়ে। https://www.youtube.com/watch?v=0ihVwAWDPwI তথ্য গুলো সংগ্রহ করতে সাহায্য নিয়েছি বিবিসি টেক, সিএনএন টেক এবং গুগোল.কম। আশা করি সবাই ভাল থাকবেন আজ এতটুকুই আল্লাহ হাফেজ! আমার ব্লগে সময় পেলে ঘুরে আসতে পারেন www.black-iz.com । সবশেষে আরও কিছু আল্ট্রা মডার্ন মোটর বাইকের ছবি শেয়ার করালাম।

আজকের টিউনটিতে আমি ভবিষ্যৎ বিশ্বের অদ্ভুত কিছু টেকনোলোজি নির্ভর বাইক সম্পর্কে আলোচনা করব। আশা করি ভাল লাগবে আমার লিখা “তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার” টিউনটি! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন।

চালকহীন বুদ্ধিমান গাড়ী গুগোলের শ্রেস্ট আবিস্কার, আরেকধাপ এগিয়ে!

অবশেষে গুগোল এর আবিস্কার "Self-driving car" সফলতার সাথে পরীক্ষায় উত্তির্ন হল। শুধু তাই নয় সাথে সাথে ক্যালফর্নিয়া শহরে চলার অনুমতি পেল। ফলে গুগোলের "Self-driving car" বাজারজাত করার ক্ষেত্রে আর বাঁধা রইল না। নিংসন্দেহে "Self-driving car" গুগোলের অন্যতম শ্রেস্ট আবিস্কার! প্রথমেই আরেকটু পরিস্কার করে বলে রাখি Self-driving car-টা আসলে কি, Self-driving car গুগোলের আবিষ্কৃত একটি গাড়ী যা কোন প্রকার ড্রাভার কিংবা চালক বিহীন চলতে সক্ষম। গুগোলের এই চালক বিহীন গাড়ী লেজার টেকনোলোজির মাধ্যমে রাস্তার এবং আঁশে পাশের 3D স্ট্রাকচার তৈরি করে এবং গুগোল ম্যাপ এর মাধ্যমে ডিরেকসন ঠিক করে নিজে নিজেই চলতে পারে। গুগোল এর আবিসকৃৎ "Self-driving car"এর ক্যালফর্নিয়া শহরে অনুমোদন পেতে পারি দিতে হয়েছে ৭০০,০০০ মাইল। তাও আবার শহরের বেস্ততম রাস্তার চালক বিহীন অবস্থায়। "Self-driving car" এখন California, Florida এবং Michigan এর মানুষের কাছে Autonomous car নামেও পরচিত। গুগোল কিছুদিন পুর্বে "Self-driving car" নিয়ে একটি ভিডিও প্রতিবেদনও সম্প্রতি (২৮-এপ্রিল-২০১৪) তাদের YouTube Channel এ প্রকাশ করে। যাতে ধারাবাহিক ভাবে গাড়িটির ভিবিন্ন বিষয় এবং পরিচয় সাধারনের উদ্দেশ্যে তুলে ধরে। ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন এখান থেকে (https://www.youtube.com/watch?v=dk3oc1Hr62g)। আজ এটুকুই আশা করি টিউনটি ভাল লাগছে কস্টে পড়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ! আল্লাহ হাফেজ সবাই ভাল থাকবেন! ফেসবুকে আমি fb.com/mehedidamenafa এবং আমার পার্সনাল সাইট www.mmm.black-iz.com।

অবশেষে গুগোল এর আবিস্কার “Self-driving car” সফলতার সাথে পরীক্ষায় উত্তির্ন হল। শুধু তাই নয় সাথে সাথে ক্যালফর্নিয়া শহরে চলার অনুমতি পেল। ফলে গুগোলের “Self-driving car” বাজারজাত করার ক্ষেত্রে আর বাঁধা রইল না। নিংসন্দেহে “Self-driving car” গুগোলের অন্যতম শ্রেস্ট আবিস্কার! প্রথমেই আরেকটু পরিস্কার করে বলে রাখি Self-driving car-টা আসলে কি, Self-driving car গুগোলের আবিষ্কৃত একটি গাড়ী

সম্পুর্ন ফ্রিতে অংশগ্রহন করুন BLACK iz IT Institute এর আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং প্রোগ্রামে!

কোন প্রকার কোর্স ফি ছাড়াই জয়েন করুন আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং প্রোগ্রামে! আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং স্কলারশিপ কোর্স রেজিস্ট্রেসন করুন

BLACK iz IT institute একটি ব্যতিক্রম ধর্মি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT institute একটি জনকল্যান মূলক আইটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ দেওয়া BLACK iz IT institute মূল উদ্যশ্য নয়, ইনফরমেশন এবং টেকনোলজি সম্পর্কিত শিক্ষার প্রসার ঘটানোই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। (অনালাইনের মাধ্যেমে সফল ভাবে নির্দিস্ট লিংকে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন

কোন প্রকার কোর্স ফি ছাড়াই জয়েন করুন আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং প্রোগ্রামে!

কোন প্রকার কোর্স ফি ছাড়াই জয়েন করুন আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং প্রোগ্রামে! আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং স্কলারশিপ কোর্স রেজিস্ট্রেসন করুন

BLACK iz IT institute একটি ব্যতিক্রম ধর্মি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT এর একটি অংগ প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT institute একটি জনকল্যান মূলক আইটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ দেওয়া BLACK iz IT institute মূল উদ্যশ্য নয়, ইনফরমেশন এবং টেকনোলজি সম্পর্কিত শিক্ষার প্রসার ঘটানোই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। বর্তমানে আউটসোর্সিং মার্কেটগুলোতে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথমদিকে। বাংলাদেশি তরুণেরা

স্যামসাং বনাম অ্যাপল, স্যামসাংকে ১১৯ মিলিয়ন ডলার জরিমানা!

একই সাথে চার্জ হবে ৪০ টি মোবাইল তাও আবার তারহীন উপায়ে!

অ্যাপলের দুটি প্যাটেন্ট নকল করার অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার আরেক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ১১ কোটি ৯৬ লাখ ডলার জরিমানা! অর্থাৎ স্যামসাংকে আবারও ১১৯ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলকে। তিন বছর ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের বিভিন্ন বিষয়ে মামলা চলছে। এর মধ্যে ভিডিও আদান প্রদান ও মোবাইলের ক্যামেরা

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার – ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত!

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার - ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন। স্কুটার বা স্কুটি আমাদের মাঝে ভেসপা নামেও পরিচিত। সম্প্রতি স্যান্স ফ্রান্সিস্কর একটি ছোট মোটর বাইক কোম্পানি লীট মোটরস এমন একটি স্কুটি আবিস্কার করেছে যা বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং পাশাপাশি বাইক তো বাইকি গাড়ির থেকেও বেশী গতিতে ছুটতে পারবে। পাশাপাশি মালপত্রও অনেক বেশী বহন করতে সক্ষম। https://www.youtube.com/watch?v=nwg3Pieoms4 দ্যা সিটি কার, যদিও নাম কার কিন্তু আসলে কার (গাড়ি) নয়, এটিও এক প্রকার মোটর সাইকেল। এটিও লীট মোটরস নামক কোম্পানিটির আবিস্কার। তবে এই মোটর সাইকেলে বসে রোঁদে পুড়ে মরার ভয় নেই। থাকছে এসি। পাশাপাশি এটিও বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং গাড়ির মতই দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম। বাইকের সাথে এর মূল মিল হচ্ছে এটিও বাইকের মতই দুই চাকার যান। এই বাইকটি প্রতি ঘন্টায় ১৬০ কিঃমিঃ অতিক্রম করতে পারবে। https://www.youtube.com/watch?v=mY9PV6Xeus0 বাইকের নতুন প্রজন্মের নাম হতে পারে রাইনো। রাইনো নামে দু-চক্র যান বা মোটর সাইকেল হলেও বাস্তবে এর রয়েছে একটি মাত্র চক্র বা চাকা। অদ্ভুত এই আবিস্কারটির সুফলে বাইকারদের জীবন থেকে মুছে যাবে যানজটের সমস্যা, পাশাপাশি পার্কিং সমাস্যা সহ ইত্যাদি। রাইনো হতে পারে বাইকের নিরাপদ সমাধান কারন এর রয়েছে নিজেস্ব ব্যাল্যানসিং সিস্টেম অর্থাৎ রাইনো নামক বাইকটি নিজেই নিজের ব্যালেন্স রাখতে সক্ষম। রাইনো প্রতি ঘন্টায় ২৭ মাইল অতিক্রম করতে সক্ষম। এদিক থেকে অবশ্য রাইনো অন্য বাইকগুলো থেকে অনেক পিছিয়ে। https://www.youtube.com/watch?v=0ihVwAWDPwI তথ্য গুলো সংগ্রহ করতে সাহায্য নিয়েছি বিবিসি টেক, সিএনএন টেক এবং গুগোল.কম। আশা করি সবাই ভাল থাকবেন আজ এতটুকুই আল্লাহ হাফেজ! আমার ব্লগে সময় পেলে ঘুরে আসতে পারেন www.black-iz.com । সবশেষে আরও কিছু আল্ট্রা মডার্ন মোটর বাইকের ছবি শেয়ার করালাম।

আজকের টিউনটিতে আমি ভবিষ্যৎ বিশ্বের অদ্ভুত কিছু টেকনোলোজি নির্ভর বাইক সম্পর্কে আলোচনা করব। আশা করি ভাল লাগবে আমার লিখা “তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার” টিউনটি! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন। স্কুটার

আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং স্কলারশিপ প্রোগ্রাম মে ২০১৪ !

ক্রিয়েটিভ অ্যাডভান্স অ্যাডভান্স এসইও কোর্স-এ অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন।

BLACK iz IT institute একটি ব্যতিক্রম ধর্মি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT এর একটি অংগ প্রতিষ্ঠান। BLACK iz IT institute একটি জনকল্যান মূলক আইটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। শিক্ষা বা প্রশিক্ষণ দেওয়া BLACK iz IT institute মূল উদ্যশ্য নয়, ইনফরমেশন এবং টেকনোলজি সম্পর্কিত শিক্ষার প্রসার ঘটানোই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। বর্তমানে আউটসোর্সিং মার্কেটগুলোতে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথমদিকে। বাংলাদেশি তরুণেরা

ফেসবুকে শির্সে থাকা কিছু রাজনৌতিক, কপি-পেস্ট এবং ১৮+ মুক্ত ফ্যানপেজ। (পর্ব-১)

ফেসবুকে অনেক পেজ রয়েছে, ভিবিন্ন অঞ্চলের রয়েছে ভিবিন্ন ফ্যান পেজ। বর্তমানে বাংলাদেশের ৫০ ভাগই ফেসবুক ফ্যান পেজ রাজনৌতিক বললে ভুল হবে না, বাকি থাকল আরও ৫০ ভাগ। আর এই ৫০ ভাগের ২৫% ভাগই বলতে গেলে বলতে হবে ১৮+ বা নোংরা ফ্যান পেজ। থাকল আর ২৫ ভাগ, এই ২৫ ভাগের মধ্যে ১৫ ভাগই হচ্ছে কপি-পেস্টে অভ্যস্ত। আর বাকি থাকে ১০ ভাগ, এই ১০ভাগ বাংলাদেশি ফ্যান পেজের মধ্যে ৫-৬ ভাগ ধরে নেওয়া যায় ভিবিন্ন অর্গানাইজেশন, কোম্পানি, টিভি কিংবা অন্য কিছুর। থাকল মাত্র ৩-৪ ভাগ বাংলাদেশি ফ্যান পেজ যাদের উদ্দেশ্য শুধুমাত্রই আনন্দ দেওয়া এবং রাজনৌতিক, কপি-পেস্ট এবং ১৮+ মুক্ত বলা চলে। এই ৩-৪ ভাগ বাংলাদেশি ফেসবুকে পেজের মধ্যে আবার মাত্র .৫০ ভাগ সম্ভবত শুধুমাত্র ভালবাসা বা love কেন্দ্রিক ফ্যানপেজ। আমার এই লিখাটা সেই সকল পেজগুলোকে নিয়ে যে পেজগুলো শুধুমাত্র মানুসষের সাথে আনন্দ এবং ভালবাসা শেয়ার করে থাকে। তবে উল্লেক্ষ যে মাত্র এই .৫০ ভাগের মধ্যে হারারেরও বেশি ভালবাসা বা love কেন্দ্রিক (বাংলাদেশি) ফ্যানপেজ হাজারেরও বেশি রয়েছে, কিন্তু সকলকে নয় বরং যে সকল পেজ বেশি আলোচিত বা পরিচিত ভালবাসার পেজ হিসাবে শুধু তাদের উদ্দেশ্যেই কিছু লিখব। তারপরও বলে নিই আমার এই লিখাতে যদি ভুল ক্রমে কোন আলোচিত বা পরিচিত ভালবাসার পেজ বাদ পরে থাকে তাহলে দুঃখিত এবং কমেন্ট করে জানিয়ে দেওয়ার অনুরধ রইল। তাহলে এবার একে একে শুরু করা যাক পেজগুলোকে নিয়ে আলোচনা। "ভালবাসার উক্তি (Love Quotes)" (http://www.facebook.com/Anup.lov3?fref=ts) : পেজটিতে প্রবেশ করতে প্রথমেই যেই লিখাটা আপনার চোখে পড়বে তা হচ্ছে "যারা মন থেকে কাউকে না কাউকে সত্যি ভালবেসে থাকেন শুধু তারাই লাইক দিবেন এই পেজটি "। অর্থাৎ পরিপুর্ন একটি ভালবাসার পেজ। এই পেজটিরও ফ্যান সংখ্যা ৮৫ হাজার। একটিভ মেমবার কিংবা talking about this প্রায় ১৬ হাজার। এদিক থেকে এটিও নিংসন্দেহে বান্দলাদেশের অন্যতম বড় একটি ফ্যানপেজ। তবে এই পেজের অ্যাডমিনের কাছে আমার একটি পার্সনাল অভিযোগ রয়েছে তা হচ্ছে, আপনার পেজটি আমার ভাল লাগে কিন্তু অন্য পেজের প্রোমোট না করলে খুব খুশি হতাম। "ভালবাসার উক্তি (Love Quotes)" জন্যে রইল প্রান ঢালা ভালবাসা এবং শুবেচ্ছা। "ভালবাসার ডাকপিয়ন (the cafe of love)" (http://www.facebook.com/cafe.of.l0ve) : "ভালবাসার ডাকপিয়ন" এবং "ভালবাসার উক্তি" দুটি ফ্যানপেজই প্রায় সমান ফ্যান রয়েছে কিন্তু একটিভ মেমবার কিংবা talking about this এর দিক থেকে "ভালবাসার ডাকপিয়ন পেজটির অবস্থান "ভালবাসার উক্তি" পেজটি থেকে পিছনে। তবে "ভালবাসার ডাকপিয়ন (the cafe of love)" পেজটির একটি বেশেষ দিক রয়েছে আর তা হচ্ছে চিঠি! হুম্ম চিঠি, আপনার চিঠি। এই পেজটির ইনফো তে একটি প্রোফাইল -এর লিংক ( www.facebook.com/valobashar.dakpion) রয়েছে এবং লিখা আছে " গল্প পাঠান এই Account এ। অবশ্যই বাংলায়।" অর্থাৎ আপনার পাঠিয়ে দেওয়া গল্প বা চিঠি এই এই পেজে প্রকাশ করা হবে এবং তা মুহুর্তের মধ্যে পৌঁছে যাবে "ভালবাসার ডাকপিয়ন (the cafe of love)" পেজটির হাজার হাজার লাইকার এর কাছে। "ভালবাসার ডাকপিয়ন (the cafe of love)" জন্যেও রইল প্রান ঢালা ভালবাসা এবং শুবেচ্ছা। "নিঃশব্দ ভালবাসা [ Nisshobdo Valobasa]" (http://www.facebook.com/nisshobdo.valobsa1) : যদিও নাম তার "নিঃশব্দ ভালবাসা" কিন্তু এখন আর নিঃশব্দ নয় প্রকাশ্যেই ভালবাসা শেয়ার করছে এই ফ্যান পেজটি। এই ফ্যানপেজটি তে রয়েছে প্রায় ৬০ হাজার লাইকার এবং talking about বা একটিভ মেমবারের সংখ্যা প্রায় ২৫ হাজার! অর্থাৎ লাইকার এর দিকে পিছিয়ে থাকলেও একটিভ মেমবারের দিক থেকে বিবেচনা করলে অনেক এগিয়ে আছে। এই পেজটির অন্যতম বিশেষণ হচ্ছে আপনার লিখা গল্প, কবিতা, জীবন ও ভালবাসার কথা পেজটিকে মেসেজ দিয়ে জানালে তারা তা তার ৬০ হাজার ফ্যানের সাথে শেয়ার করবে। এছাড়াও পেজটির অন্যতম একটি ভাল দিক পেজটির প্রায় প্রতিটি লিখাই ছবি সহ পোস্ট করা হয়, যা লিখার কথাগুলো পাঠকের কাছে আরও বেশি স্পস্ট করে তুলে। "নিঃশব্দ ভালবাসা [ Nisshobdo Valobasa]" ফ্যানপেজটির প্রতি রইল শুভেচ্ছা এবং শুভকামনা। "ভালবাসা এবং কিছু আবেগের গল্প" (http://www.facebook.com/abegmoy.valobasha) : "ভালবাসা এবং কিছু আবেগের গল্প" ফ্যানপেজটি তে রয়েছে প্রায় ৬০ হাজার লাইকার কিন্তু talking about বা একটিভ মেমবারের সংখ্যা খুব কম। এর নির্দিস্ট কোন কারন খুজে পাইনি। তবে এই ফ্যানপেজটিও অসাধারন ভালবাসার সব লিখা পোস্ট করে যায়। বিশেষ করে বিশিষ্ট ব্যাক্তিদের ভিবিন্ন সময় দেওয়া ভালবাসার উক্তি যা সত্যিয় অসাধারন। আশা করি সকলের ভালবাসায় "ভালবাসা এবং কিছু আবেগের গল্প" পেজটি বহুদূর এগিয়ে যাবে। "ভালবাসার গল্প" (http://www.facebook.com/valobashaunlimited) : "ভালবাসার গল্প" পেজটি নিয়ে বেশি কিছু বলার নেই, শুধু এর বিশেষ বিশেষ দুটি দিক তুলে ধরব এক নাম্বার এরা খুব কম ছবি শেয়ার করে ফলে মোবাইলে ফেসবুক ব্যবহার কারিরা খুব সহজেই "ভালবাসার গল্প" ফ্যানপেজটির স্ট্যাটাস দেখতে পায়, দ্বিতীয় প্রতিটি "ভালবাসার গল্প" -ই অত্যন্ত সুন্দর এবং আনেগময় যা খুব সহজেই যে কোন পাঠকের মন কে নারা দেয়। "ভালবাসার গল্প" তে আরও সুন্দর সুন্দর ভালবাসার গল্প পাবে এর ফ্যান-রা এই প্রত্যাশায় "ভালবাসার গল্প" ফ্যানপেজটি সম্পর্কে আলোচনা এখানেই শেষ করছি। "Onnorokom Bhalobasha _অন্য রকম ভালবাসা" (http://www.facebook.com/love0182) : এই পেজটিতে অধভুত একটা ব্যপার রয়েছে আর তা হচ্ছে পেজটির লাইকার এবং talking about বা একটিভ মেমবারের সংখ্যা প্রায় সমান অর্থাৎ প্রায় ১০,০০০ একটিভ মেমবার আবার ১০,০০০ লাইকার। অনেক পেজের মাঝে এমন সমান সমান লাইকার এবং একটিভ মেমবার খুজে পাওয়া কঠিন। তাই একটু অবাক হলাম। কিন্তু এই পেজের অন্য আরেকটা বিশেষ দিক হচ্ছে শুধু ভালবাসা নয়, গান বা অন্নান্য বিষয়ও এখানে হাইলাইট করা হয়। "Onnorokom Bhalobasha _অন্য রকম ভালবাসা" তোমার জন্য রইল আমার অন্যরকম ভালবাসা! "Amar valobasha Radio Aamar 88.4fm" (http://www.facebook.com/lovegurus.amarvalobasa?fref=ts) : সর্বশেষ যেই পেজটি নিয়ে লিখব তা হচ্ছে "Amar valobasha Radio Aamar 88.4fm", এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রেডিও ভালবাসার প্রোগ্রাম-এর নামের অনুকরনে নাম করা হয়েছে। এই পেজটির লাইক সংখ্যা ১,০২,৯৮৮! এবং একটিভ মেমবার ৬১,৪৬২। নিয়মিত পোস্ট এবং নামের পরিচিতিয় এই পেজটিকে এত দূরে নিয়ে আসছে বলে আমি মনে করি। এই পেজটিতেও ভালবাসা সম্পর্কিত যে কোন লিখা মেসেজ করে পাঠাতে পারেন। ভালবাসা রইল "Amar valobasha Radio Aamar 88.4fm" এর সকল অ্যাডমিনের জন্য! শুরুতেই বলেছি আবারও বলছি এখানে শুধুমাত্র ভালবাসা সপর্কিত পেজগুলোর তথ্য শেয়ার করলাম এবং যদি ভালবাসা সপর্কিত কোন পেজের নাম উল্লেখ করতে ভুলে যাই তবে অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দেওয়ার অনুরধ রইল। লিখাটা ভাল লাগলে আমাকে ভালবেসে শেয়ার এবং লাইক করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ কস্ট করে এ পর্যন্ত পড়ার জন্য! (লিখার ভাস)

ফেসবুকে কয়েক লক্ষ কোটি ফ্যান পেজ রয়েছে, ভিবিন্ন অঞ্চলের রয়েছে ভিবিন্ন ফ্যান পেজ। বাংলাদেশেরও রয়েছে লক্ষের উপর ফ্যানপেজ কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশের ৫০ ভাগ ফেসবুক ফ্যানপেজই রাজনৌতিক বললে ভুল হবে না, অর্থাৎ সাধারনের জন্য বাকি রইল জন্য বাকি থাকল আর ৫০ ভাগ। আর এই ৫০ ভাগের ২৫% ভাগই বলতে গেলে বলতে হবে ১৮+ বা নোংরা ফ্যান

কম্পিউটার ভাইরাসের বিস্তারিত ইতিহাস এবং এর থেকে সুরক্ষার কৌশল, চলুন জেনে নেই !!

কম্পিউটার ভাইরাস বিস্তারিত ইতিহাস এবং এর থেকে সুরক্ষা থাকার কৌশল

কম্পিউটার ভাইরাস হল এক ধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা ব্যবহারকারীর অনুমতি বা ধারণা ছাড়াই নিজে নিজেই কপি হতে পারে। মেটামর্ফিক ভাইরাসের মত তারা প্রকৃত ভাইরাসটি কপিগুলোকে পরিবর্তিত করতে পারে অথবা কপিগুলো নিজেরাই পরিবর্তিত হতে পারে। একটি ভাইরাস এক কম্পিউটার থেকে অপর কম্পিউটারে যেতে পারে কেবলমাত্র যখন আক্রান্ত কম্পিউটারকে স্বাভাবিক কম্পিউটারটির কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। যেমন: কোন