BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

Category Archives: যত অদ্ভুত আবিস্কার

পর্ন স্টার থেকে সাংসদ, বিড়াল যখন মেয়র

ছিলেন পর্ন স্টার, হয়ে গেলেন সাংসদ কিংবা সামান্য বিড়াল থেকে একলাফে মেয়র! পেশা বদলেও পর্ন স্টার সাংসদ বিতর্কে কম জড়াননি। আবার মেয়র হয়ে পর্যটকদের কাছে মূল আকর্ষণ হয়ে ওঠেন বিড়াল স্টাব। এমনই সব জনপ্রিয় রাজনীতিকদের অদ্ভুত ব্যাকগ্রাউন্ড নিয়ে এই গ্যালারি। পর্ন স্টার থেকে ইতালির পার্লামেন্টে: ইলোনা স্টলার হাঙ্গেরির পর্ন স্টার ছিলেন। ১৯৮৭ সাল থেকে ১৯৯২

রহস্য ফাঁস হলো বারমুডা ট্র্যায়াঙ্গেল এর

রহস্য ফাঁস হলো বারমুডা ট্র্যায়াঙ্গেল এর

রহস্য ফাঁস হলো বারমুডা ট্র্যায়াঙ্গেল এর। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল আটলান্টিক মহাসাগরের একটি বিশেষ অঞ্চল। অঞ্চলটিকে বিশেষ বলার কারণ, এই অঞ্চল দিয়ে চলাচলকারী অনেক জাহাজ রহস্যজনক ভাবে নিখোঁজ হয়ে যায়। শুধু জাহাজ নয়, বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল এর উপর দিয়ে উড়ে যাওয়া অনেক উড়োজাহাজও হারিয়ে গেছে চিরতরে। এমনকী খুঁজে পাওয়া যায় না সেগুলোর ধ্বংসাবশেষও। কিন্তু কি কারণে এমনটি হয়

১০০০ টন হীরা বৃষ্টিতে ঝরে পড়ে

১০০০ টন হীরা বৃষ্টিতে ঝরে পড়ে

সৌরজগতের দুই গ্রহ শনি আর বৃহস্পতির বুকে ঝরে পড়ে হীরা বৃষ্টি। জি নিউজ জানিয়েছে, সৌরজগতের দুই গ্রহ শনি আর বৃহস্পতির বুকে ঝরে পড়ে ডায়মন্ড বা হীরা বৃষ্টি! বৃষ্টি মানেই আকাশ থেকে জলবর্ষণ, সঙ্গে কখনও কখনও ঝরে পড়তে পারে শিলাও। কিন্তু বৃষ্টির সঙ্গে হীরা ঝরে পড়ে_ এমনটি শুনেছেন কখনও? হ্যাঁ, সেখানে সত্যি সত্যি আকাশ থেকে হীরাই

এমন কিছু আজব প্রাণী যেগুলো না দেখলেই নয়! চলুন দেখে নেই এই আজব প্রাণীদের!!!

বিজ্ঞানের আজব সব আবিষ্কারের মধ্যে একটি চরম আবিষ্কার হল ক্রসিং । আমরা সবাই মোটামুটিভাবে এই বিষয়টির সম্পর্কে পরিচিত। আমরা জানি যে ক্রসিং এর মাধ্যমে নতুন নতুন জাত সৃষ্টি করা যায়। নতুন নতুন প্রজাতি সৃষ্টি করা যায়। কিছু প্রাণী আছে যারা নিজেদের প্রজাতিকে ঠিক রেখে নিজেরাই ক্রস ঘটিয়ে নতুন জাতকে পৃথিবীতে আমন্ত্রণ করে আর কিছু আছে

বিজ্ঞানের আজব আবিষ্কার

বিজ্ঞানীদের বেশিরভাগ গবেষণার বিষয়বস্তু এবং ফলাফল বেশ গুরুগম্ভীর হয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে অনেক আবিষ্কার এতই অদ্ভুত হয় যে, অবাক হয়ে যান স্বয়ং বিজ্ঞানীরাই। জীবন বাঁচাতে তেলাপোকা : যে তেলাপোকা অনেকের ভয়ের কারণ হয়, সেই তেলাপোকাই বাঁচাতে পারে মূল্যবান জীবন। জীবন্ত তেলাপোকা ব্যবহার করে বিজ্ঞানীরা তৈরি করেছেন রিমোট কন্ট্রোলড সাইবর্গ ককরোচ। এই সাইবর্গ তেলাপোকার কাজ হবে

নতুন প্রজুক্তি- ভাঙ্গা বস্তু জোড়া লাগবে নিজে নিজেই

নতুন প্রজুক্তি- ভাঙ্গা বস্তু জোড়া লাগবে নিজে নিজেই! এই প্রজুক্তি আর কল্পকাহিনী নয়, এখন এটি বাস্তবেই সম্ভব। অসম্ভব এই বিষয়টিকে সম্ভব করেছেন নেদারল্যান্ড এর বিজ্ঞানীরা। নেদারল্যান্ডের Eindhoven University of Technology এর বিজ্ঞানীদের সঙ্গে নিয়ে রাসায়নিক কোম্পানি AkzoNobel নতুন ধরনের এ পলিমার উদ্ভাবন করেছেন। নতুন ধরনের এই পলিমার দিয়ে তৈরি কোন বস্তু ভেঙ্গে গেলে দুই প্রান্ত

লাভ ৩৫ রুপি ২৫১ রুপিতে স্মার্টফোন বেচেও

লাভ ৩৫ রুপি ২৫১ রুপিতে স্মার্টফোন বেচেও, phone-251

ভারতে ২৫১ রুপিতে স্মার্টফোন বিক্রির ঘোষণা এক সপ্তাহ আগের। মূলত দেশটির নিম্নআয়ের লোকদের কাছে ফোনসেট সহজলভ্য করতেই এ উদ্যোগ নিয়েছেন নদীয়ার একজন ব্যবসায়ী মোহিত গোয়েল। তবে এতে হিতে বিপরীত হতে শুরু করেছে। ২৫১ রুপিতে মোবাইল ফোন বিক্রির ঘোষণা দেওয়ার পর নদীয় তার দুইতলা বিশিষ্ট একটি ভাড়া করা অফিসে প্রতিদিন পুলিশ ও আয়কর বিভাগের লোকদের স্রোত

আমি ভাল নই,অতটা খারাপও বলার উপায় নেই।আমার মাঝে মনুষত্ব এবং পশুত্ব দুটোই বিরাজমান।

মন ভাল করে দেবার মত একটা ছবি। কি ভাবছেন, ওরা দুজনে কি দেখছে?

আমি ভাল নই,অতটা খারাপও বলার উপায় নেই।আমার মাঝে মনুষত্ব এবং পশুত্ব দুটোই বিরাজমান। এরা প্রতিনিয়ত যুদ্ধে লিপ্ত হচ্ছে।আজ অবধি মনুষত্বই বিজয় লাভ করেছে। কিন্তু ,অদূর ভবিষ্যতেও যে মনুষত্ব তার জয়ের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে,তার নিশ্চয়তা নেই।সুতরাং, সাবধান! ——– ——– ——– ——– সংগ্রহ করেছেনঃ মোহাম্মাদ মেহেদি মেনাফা

পৃথিবীর অদ্ভুত কিছু আবিস্কার এবং আমার কিছু টিউন!

বহনযোগ্য অসাধারন একটি ঘড়ঃ এই ঘড়টির পছন্দ হয় কিনা? বহনযোগ্য অসাধারন এই ঘড়টির যে কোন স্থান থেকে যে কোন স্থানে মুহুর্তের মধ্যেই সরিয়ে নেওয়া সম্ভব। এটি একটি চলমান পিক-আপের উপর বানানো হয়েছে ফলে ভ্রমন পিয়াসু মানুষের জন্য এমন একটি ঘড় হতে পারে আলাদিনের চেড়াগের মতই!

আজকের পোস্টটি অদ্ভুত কিছু আভিস্কার নিয়ে সাজিয়েছি। প্রথমেই আলোচনা করব Quadski নামক একটি অদ্ভুত বাইক নিয়ে। দ্বিতীয়তে আলোচনা করব “শোলার পাওয়ার টেন্ট” নামক অদ্ভুত একটি তাবু নিয়ে। তৃতীয়েতে বহনযোগ্য ঘড় নিয়ে এবং সবশেষে থাকছে সুর্যের আলোয় চলা একটি জাহাজ সম্পর্কে। Quadski শুধু বাইকই নয় বরং স্পীড বোটও বটেঃ Quadski নামক এই বাইকটি পানি এবং ভুমি

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার – ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত!

তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার - ভিডিও এবং ছবি সহ বিস্তারিত! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন। স্কুটার বা স্কুটি আমাদের মাঝে ভেসপা নামেও পরিচিত। সম্প্রতি স্যান্স ফ্রান্সিস্কর একটি ছোট মোটর বাইক কোম্পানি লীট মোটরস এমন একটি স্কুটি আবিস্কার করেছে যা বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং পাশাপাশি বাইক তো বাইকি গাড়ির থেকেও বেশী গতিতে ছুটতে পারবে। পাশাপাশি মালপত্রও অনেক বেশী বহন করতে সক্ষম। https://www.youtube.com/watch?v=nwg3Pieoms4 দ্যা সিটি কার, যদিও নাম কার কিন্তু আসলে কার (গাড়ি) নয়, এটিও এক প্রকার মোটর সাইকেল। এটিও লীট মোটরস নামক কোম্পানিটির আবিস্কার। তবে এই মোটর সাইকেলে বসে রোঁদে পুড়ে মরার ভয় নেই। থাকছে এসি। পাশাপাশি এটিও বৈদ্যতিক চার্জে চলতে সক্ষম এবং গাড়ির মতই দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম। বাইকের সাথে এর মূল মিল হচ্ছে এটিও বাইকের মতই দুই চাকার যান। এই বাইকটি প্রতি ঘন্টায় ১৬০ কিঃমিঃ অতিক্রম করতে পারবে। https://www.youtube.com/watch?v=mY9PV6Xeus0 বাইকের নতুন প্রজন্মের নাম হতে পারে রাইনো। রাইনো নামে দু-চক্র যান বা মোটর সাইকেল হলেও বাস্তবে এর রয়েছে একটি মাত্র চক্র বা চাকা। অদ্ভুত এই আবিস্কারটির সুফলে বাইকারদের জীবন থেকে মুছে যাবে যানজটের সমস্যা, পাশাপাশি পার্কিং সমাস্যা সহ ইত্যাদি। রাইনো হতে পারে বাইকের নিরাপদ সমাধান কারন এর রয়েছে নিজেস্ব ব্যাল্যানসিং সিস্টেম অর্থাৎ রাইনো নামক বাইকটি নিজেই নিজের ব্যালেন্স রাখতে সক্ষম। রাইনো প্রতি ঘন্টায় ২৭ মাইল অতিক্রম করতে সক্ষম। এদিক থেকে অবশ্য রাইনো অন্য বাইকগুলো থেকে অনেক পিছিয়ে। https://www.youtube.com/watch?v=0ihVwAWDPwI তথ্য গুলো সংগ্রহ করতে সাহায্য নিয়েছি বিবিসি টেক, সিএনএন টেক এবং গুগোল.কম। আশা করি সবাই ভাল থাকবেন আজ এতটুকুই আল্লাহ হাফেজ! আমার ব্লগে সময় পেলে ঘুরে আসতে পারেন www.black-iz.com । সবশেষে আরও কিছু আল্ট্রা মডার্ন মোটর বাইকের ছবি শেয়ার করালাম।

আজকের টিউনটিতে আমি ভবিষ্যৎ বিশ্বের অদ্ভুত কিছু টেকনোলোজি নির্ভর বাইক সম্পর্কে আলোচনা করব। আশা করি ভাল লাগবে আমার লিখা “তিনটি অদ্ভুত দু-চক্র যানের আবিস্কার” টিউনটি! স্কুটার বা স্কুটি পৃথিবীর অনেক দেশেই একটা জনপ্রিয় চলাচলের মাধ্যম। এটি বাইকের মতই অনেকটা কিন্তু একটু স্লো এবং শব্দ বেশী করে। সহজ ভাবে বলতে গেলে স্কুটি হচ্ছে বাইকের একটা সংস্করন।

পৃথিবীর প্রথম গাড়ি! – ধারাবাহিক পোস্ট

পৃথিবীর প্রথম গাড়ি! - ধারাবাহিক পোস্ট

পৃথিবীর প্রথম প্রথম গাড়ির জনকঃ Nicolas-Joseph Cugnot পৃথিবীর প্রথম প্রথম গাড়ির জন্মঃ 1769 পৃথিবীর প্রথম প্রথম গাড়ির প্রথম ড্রাইভারঃ Bertha Benz পৃথিবীর প্রথম প্রথম গাড়ির ব্রান্ডঃ Czech (later renamed to Tatra) পৃথিবীর প্রথম প্রথম গাড়ির বাজারজাতকরনঃ 1892 পৃথিবীর প্রথম গাড়ী নিয়ে আরও কিছু কথাঃ পৃথিবীর প্রথম গাড়ীর জনক হিশাবে ইতিহাসের খাতায় Nicolas-Joseph Cugnot এর জায়গা

ভূল শুধরে আবার ক্রিকেট অঙ্গনে ফিরে আসবে আশরাফুল।

আশরাফুল টাকার জন্য ম্যাচ ফিক্সিং করেনি । সে নিজের ক্যারিয়ার বাঁচানোর জন্য বাধ্য হয়ে ম্যাচ ফিক্সিং করেছে । আশরাফুল সেদিন ম্যাচ ফিক্সিং না করলে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর’স এর ম্যানেজার তাকে দল থেকে বাদ দিতো । তখন আশরাফুলের ফর্মওখারাপ ছিলো আর এই সুজুগ টাই নিলো ডিজি টিমের ম্যানেজার । আশরাফুলকে ফিক্সিং করাতে বাধ্য করলো ওরা । কিন্তু

নারীকে পণ্য করে উপস্থাপনে যৌন হয়রানি বাড়ছে

বেইজিং: চীনে বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের ওপর যৌন হয়রানির ঘটনা বেড়ে চলায় শিক্ষকদের পেশাদারিত্বের নৈতিকতা নিয়ে চারিদিকে উত্তপ্ত আলোচনা শুরু হয়েছে। চায়না পিপলস ডেইলিতে চীনা সমাজের বিদ্যমান লিঙ্গ বৈষম্যকেই শুধু বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের ওপর যৌন হয়রানির ঘটনা বেড়ে চলার জন্য দায়ী করলে চলবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। ওই দৈনিকে প্রকাশিত এক নিবন্ধে বলা হয়, শুধু সমাজের বিদ্যমান পুরুষতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গীই নারীর ওপর যৌন হয়রানির প্রধানতম কারণ নয়। বরং নারীকে পণ্য করে বাজারে তোলার যে সংস্কৃতি চালু হয়েছে তাও নারীর ওপর যৌন হয়রানি উস্কে দেয়ার ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখছে। এতে বলা হয়, নারীর অধিকার হরণ নারীর ওপর যৌন হয়রানির মূলেই নিহিত। পণ্যের বিজ্ঞাপনে নারীকে ব্যাবহারের প্রভাব, ইন্টারনেট এবং গণমাধ্যমে নারীকে যৌন আবেদনময়ী ভঙ্গিতে উপস্থাপনও নারীদের ওপর বেড়ে চলা যৌন হয়রানির পেছনে দায়ী। http://www.rtnn.net/realtime/records/imagefile/201306/8044_1.jpg চীনা সমাজ এখনো পুরুষতান্ত্রিকই রয়ে গেছে এবং এটাই প্রধানত দেশটির বিদ্যমান লিঙ্গ বৈষম্যের কারণ। চীনে এখনো দম্পতিরা ছেলে শিশুর আশা করে বেশি। সেখানে নারীরা এখনো পুরুষের চেয়ে হীন হিসেবেই গণ্য হয়। তার ওপর আছে আবার জন্মনিয়ন্ত্রণ নীতির খড়গ। এর ফলে বিশ্বের মধ্যে যেসব দেশে নারী-পুরুষের সংখ্যা মারাত্মকভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ছে চীনও তার মধ্যে একটি। এক হিসেবে দেখা গেছে, ২০২০ সালের মধ্যে চীনে ৩ থেকে ৪ কোটি পুরুষ পাত্রীর অভাবে অবিবাহিতই থেকে যাবেন যা দেশটিতে মারাত্মক সামাজিক গোলযোগও সৃষ্টি করতে পারে। চীনে ধনী, রাজনৈতিকভাবে সফল, বিখ্যাত এবং উচ্চ শিক্ষিতরাই বিয়ের বাজারে সবচেয়ে জনপ্রিয়। আর প্রান্তিক পর্যায়ের বিশেষত গ্রামীণ এবং অনুন্নত এলাকার পুরুষরা বিয়ের বাজারে একেবারেই পিছিয়ে। ফলে অসচ্ছল পুরুষদের জন্য একজন জীবন সঙ্গিনী পাওয়াটা খুবই কঠিন হয়ে পড়ছে যা মারাত্মক সামজিক অস্থিরতা সৃষ্টি করছে। আয়-রোজগার, শ্রমের বিভাজন, সম্পদের বন্টন এবং রাজনীতিতে অংশগ্রহণের দিক থেকে চীনা সমাজের নারী ও পুরুষের মধ্যে এখনো ব্যাপক বৈষম্য রয়ে গেছে। বাণিজ্যিকীকরণ এবং বিজ্ঞাপন ও ইভেন্টে নারীকে ক্রমাগত একটি ভোগ্য পণ্য হিসেবে উপস্থাপনের ফলে পুরুষরা নারীকে তাদের লালসা মেটানোর সবচেয়ে নমনীয় শিকার হিসেবে ভাবছে। লিঙ্গ বৈষম্য দূর করতে এবং সমাজে নারীদেরকে তাদের নায্য মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত করতে মানুষকে এখনো অনেক লম্বা পথই পাড়ি দিতে হবে।

বেইজিং: চীনে বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের ওপর যৌন হয়রানির ঘটনা বেড়ে চলায় শিক্ষকদের পেশাদারিত্বের নৈতিকতা নিয়ে চারিদিকে উত্তপ্ত আলোচনা শুরু হয়েছে। চায়না পিপলস ডেইলিতে চীনা সমাজের বিদ্যমান লিঙ্গ বৈষম্যকেই শুধু বিদ্যালয়ে ছাত্রীদের ওপর যৌন হয়রানির ঘটনা বেড়ে চলার জন্য দায়ী করলে চলবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। ওই দৈনিকে প্রকাশিত এক নিবন্ধে বলা হয়, শুধু সমাজের

আত্মহত্যায় ব্যর্থ জ্যাকসনকন্যা হাসপাতালে

শুধু বিধাতার সৃষ্টি নহ তুমি নারী ! পুরুষ গড়েছে তোমারে সৌন্দর্য সঞ্চারি আপন অন্তর হতে । বসি কবিগণ সোনার উপমাসূত্রে বুনিছে বসন । সঁপিয়া তোমার 'পরে নূতন মহিমা অমর করেছে শিল্পী তোমার প্রতিমা । কত বর্ণ, কত গন্ধ, ভূষণ কত-না -- সিন্ধু হতে মুক্তা আসে, খনি হতে সোনা, বসন্তের বন হতে আসে পুষ্পভার, চরণ রাঙাতে কীট দেয় প্রাণ তার । লজ্জা দিয়ে, সজ্জা দিয়ে, দিয়ে আবরণ, তোমারে দুর্লভ করি করেছে গোপন । পড়েছে তোমার 'পরে প্রদীপ্ত বাসনা -- অর্ধেক মানবী তুমি, অর্ধেক কল্পনা ।

ওয়াশিংটন: প্রয়াত পপকিংবদন্তি মাইকেল জ্যাকসনের ১৫ বছর বয়সী মেয়ে প্যারিস জ্যাকসন আত্মহত্যার চেষ্টা করার পর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্যারিস মাইকেল জ্যাকসনের একমাত্র কন্যা। তিনি তার স্কুলের একজন চিয়ার লিডার। তার দাদা এনজেল হাওয়ানস্কির গণসংযোগ কর্মকর্তা এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, প্যারিসের অবস্থার উন্নতি হচ্ছে এবং তিনি এখন সুস্থ হয়ে উঠছেন। নিরাপত্তা

এ ড্রাগ এডিক্ট’স জার্নি টু নিউ লাইফ

বেইজিং: ২৯ বছর বয়সী ওয়াং কিং (ছদ্মনাম) স্ত্রী-সন্তান এবং বাড়ি-গাড়ি নিয়ে একটি সুন্দর জীবনই যাপন করতে পারতেন। কিন্তু কয়েক বছর আগে কেটামিন নামক এক কেমিকেল ড্রাগ নেয়া শুরু করার পর থেকে সে সবই হারায়। আমরা যেদিন তার সাথে সাক্ষাৎ করি ততদিনে তিনি চুংকিং পুনর্বাসন কেন্দ্রে এক বছর পার করে দিয়েছে। তিনি লোককে নেশা থেকে দূরে

মহাবিশ্ব ও কক্ষপথ নিয়ে পবিত্র কোরআনের ব্যাখ্যা ।।

কিছু ভুতুড়ে জাহাজের পরিচিতি

আজ হঠাত মহাবিশ্ব নিয়ে লিখতে ইচ্ছে হচ্ছে, কারন টা হচ্ছে মসজিদে হুজুরের ওয়াজ শুনেছিলাম এ প্রসঙ্গে। এসে নেটে সার্চ করতে থাকলাম পড়লাম এর এখন আপনাদের শেয়ার করছি। আসলে এক্ষেত্রে ধর্মের ভেদাভেদ ভুলে আসুন সবাই একটূ জানি। যে যেমনি করিনা কেন আমরা সবাই কিন্তু আল্টিমেটলি বিধাতায় বিশ্বাস করি।। সুতরাং তার এই রহস্যময় মহাবিশ্ব নিয়ে পবিত্র কোরআন

সাভার ট্রাজেডিঃ বানী চিরন্তনী !!

শুরুটা একটা প্রশ্ন দিয়ে করিঃ একদল পন্ডিত রানা খুলনায় আছে এটা ফ্যাসবুকে শেয়ার হওয়ার সাথে সাথে তথ্যটি ভুল, তথ্যটি শাগুদের চাল, যারা তথ্যটি শেয়ার করছে তারা নির্বোধ ইত্যাদি ইত্যাদি বলে প্রতিবাদ করে গলা ফাটিয়ে ফেলেছিল। যেই তথ্যের ভিত্তিতে এক ঘন্টার মাথায় খুলনায় র‍্যাব-পুলিশ অভিজান চালাল এবং শেষমেস যশোরের বেনাপোল থেকেই গ্রেপ্তার করা হল রানাকে। তবে কেন বা কি কারনে এই তথ্য শেয়ার করাতে একদলের এত কস্ট হচ্ছিল "রানাকে বাঁচাতে নাকি পণ্ডিত সাঁজতে? " ঘটনার শুরু আজ সকাল ১১টা নাগাদ আমার এক ফ্যাসবুক ফ্রেন্ড একটা পোস্ট শেয়ার করে তাতে দেখতে পাই রানা খুলনা , সোনাডাঙ্গায় রয়েছে। পরে একটু খেয়াল করে দেখলাম মুল লিখাটি আমার উক্ত ফ্রেন্ড "বাঁশেরকেল্লা - Basherkella" নামক পেজ থেকে শেয়ার করেছে। আমাদের সকলেরই জানা পেজটি বর্তমানে ফ্যাসবুকে অন্যতম জনপ্রিয় বা এক পক্ষের মতে বিতর্কিত পেজ, এক পক্ষ দাবি করে "বাঁশেরকেল্লা - Basherkella" সবসময় মিথ্যচার করে। "বাঁশেরকেল্লা - Basherkella" মিথ্যাচার করে নাকি তারাই করে আজ তা আরেকবার স্পস্ট হল, ধারাবাহিক ভাবে এই লিখাটা পড়লেই আপনি এর উত্তর খুঁজে পাবেন। বারবারই বলা হচ্ছিল কেও যদি দেখে থাকেন রানাকে যেন ফ্যাসবুকের মাধ্যমে তা প্রচার করে দেওয়া হয়। সেই সুত্রেই হয়ত কেও উক্ত তথ্যটি "বাঁশেরকেল্লা - Basherkella" এর ফ্যানপেজের অ্যাডমিন কে বা অন্নান্য অ্যাডমিন কে ম্যাসেজ দিয়ে জানিয়েছেন। যে বা যারা জানিয়েছিল তাদের নাম এখনও জানা যায়নি। কিন্তু তার ঠিক ২.০০ থেকে ২.৩০ মিনিটের দিকে খুলনা , সোনাডাঙ্গায় রয়েছেন রানা ঐ তথ্যের বিরুধিতা বা ঐ তথ্যটি অপপ্রচার বলে আরেকটি পক্ষ গলা ফাটাতে শুরু করে। "শাহবাগে সাইবার যুদ্ধ" নামক পেজটিতে তখন যা লিখা হইয়েছিল তা নিম্নরূপঃ "প্রচণ্ড রকমের হতাশ ও হতবাক হই ফেসবুকে নির্বোধের সংখ্যা দেখে। খুলনার কোনো একটা বাড়িতে সোহেল রানার দেখা পাওয়া গেছে -- বাড়ির ঠিকানা দিয়ে এই মর্মে একটা স্ট্যাটাস এসেছে একটা ফেইক আইডি থেকে। অমনি স্ট্যাটাসটা ছড়িয়ে পড়ছে চারিদিকে, আমার হোমপেজে স্ট্যাটাসটা বারবার আসছে shared হয়ে। শেয়ারকারীরা জানলই না, যে আইডিটা ('দাসত্ব শেকল') থেকে স্ট্যাটাসটা ছড়ানো হয়েছে, সে আইডিটা শিবিরচালিত একটা ফেইক আইডি। নির্বোধের দল কিছু না বুঝেশুনেই স্ট্যাটাসটা শেয়ার করা শুরু করল! রানা অত্যন্ত ধূর্ত ও প্রতাপশালী। এই খুনিটা এত বোকা না যে, তার পালাবার জায়গাটা এভাবে ফাঁস হয়ে যাবে। খুলনার যে বাড়িটার ঠিকানা ছাগুরা ছড়াচ্ছে, সেখানে নিশ্চয়ই এখন কিছু লোক জমে যাবে এবং সেখানে একটা দাঙ্গা-ফ্যাসাদ ঘটবে। আর সেই দাঙ্গা দেখে আনন্দে বগল বাজাবে ছাগুর পাল। খোঁজ নিলে দেখা যাবে স্ট্যাটাসে বর্ণিত ঐ বাড়িটি হয়তো কোনো মুক্তিযোদ্ধার বা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের কোনো অনলাইন অ্যাকটিভিস্টের, তাকে হয়তো সেরেফ হয়রানিতে ফেলতেই তার বাড়ির ঠিকানা ছাগুরা ফেসবুকে ছড়াচ্ছে। এই সহজ হিশাবটা কেন বুঝি না আমরা? কেন এতটুকু কমন সেন্স না খাটিয়েই যা দেখি তাই শেয়ার করে বসি? সাইদিকে চাঁদে দেখা যাওয়ার কিংবা এনাম মেডিকেলে একশো লাশ লুকোবার গুজব যারা ছড়িয়েছে, খুলনায় রানাকে পাওয়ার গুজব ওরাই ছড়াচ্ছে। গুজব আর ফটোশপ ছাড়া ওদের কোনো অবলম্বন নেই। ওমুক ছবি শেয়ার দিলে ওমুক অসুস্থ ব্যক্তিকে ফেসবুক ১ডলার দেবে, ওমুক ছবিতে লাইক দিলে বা শেয়ার করলে নেকি পাওয়া যাবে -- এইজাতীয় বিভ্রান্তির ফাঁদে পা দেবেন না প্লিজ। ছাগু আইডিগুলো নিজ দায়িত্বে চিনে রাখুন। ছাগুদের দেয়া তথ্য বিশ্বাস করার আগে বা ছড়াবার আগে দয়া করে তা যাচাই করে নিন।" উক্ত লিখাটা পরে অবাক হয়েছিলাম কারন যেই ব্যাক্তি তথ্যটা দিয়েছে তাকে ধন্যবাদ না দিয়ে বরং বাজে বোকা হল অথচ ঠিক তার এক ঘন্টার মাথায় খুলনায় র‍্যাব-পুলিশ অভিজান চালাল এবং শেষমেস খুলনার বেনাপোল থেকেই গ্রেপ্তার করা হল। তখন আরও হতাশ ও হতবাক হলাম এরা কি রানাকে বাঁচাতে চেয়েছিল নাকি পণ্ডিত সাঁজতে (খুলনা, সোনাডাঙ্গায় রানা উক্ত) তথ্যটি ভুল প্রমানে উঠে পরে লেগেছিল? যদি বাঁচাতে হয় তাহলে কিছুই বলার নেই শুধুই আরও হতাশ হব আর যদি হয় পণ্ডিত সাঁজতে তাহলে বলব গন্ড মুর্খ-এর দল তোমরা এখন থেমে যাও, যুক্তিহীন কথার বর্তমানে আর কোন মুল্য নেই। আরও কিছু বলাতে ইচ্ছে করছে তাদের তারা বলে ফেসবুকে নির্বোধের সংখ্যা দেখে তারা হতাশ ও হতবাক হচ্ছে, অথচ তাদের মত আহম্মক আর গন্ড মুর্খ দেখে আমরা শুধু হতাশ ও হতবাক নই রীতি মত তাদের আমরা আবাল মনে করি। তাদের চামচাগুলকে মনে হয় ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চা, কিছু না বুজেই নাচে। তারা মনে করে তারা যা বলবে তাই সত্য। এবার সেই ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চাগুলিকে কিছু বলব এত বিশ্বাস করিস যাদের, তোদের সেই পণ্ডিত-রাই বলল/বলেছিল "...যে আইডিটা ('দাসত্ব শেকল') থেকে স্ট্যাটাসটা ছড়ানো হয়েছে, সে আইডিটা শিবিরচালিত একটা ফেইক আইডি। নির্বোধের দল কিছু না বুঝেশুনেই স্ট্যাটাসটা শেয়ার করা শুরু করল!..." দাসত্ব শেকল কি এই তথ্য ফ্যাসবুকে শেয়ার দিয়েছে কিনা জানি না তবে দিয়ে থাকলেতো হলই আর যদি না দিয়ে থাকে তবে রানা গ্রেপ্তারের তথ্য প্রকাশের সাহসিকতার পুরষ্কার জোড় করেই শিবিরকে দিয়ে দেওয়া দিল? আরও একটা কথা আমাকে খুব অবাক করছে, তারা লিখেছে "খোঁজ নিলে দেখা যাবে স্ট্যাটাসে বর্ণিত ঐ বাড়িটি হয়তো কোনো মুক্তিযোদ্ধার বা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের কোনো অনলাইন অ্যাকটিভিস্টের, তাকে হয়তো সেরেফ হয়রানিতে ফেলতেই তার বাড়ির ঠিকানা ছাগুরা ফেসবুকে ছড়াচ্ছে। এই সহজ হিশাবটা কেন বুঝি না আমরা? কেন এতটুকু কমন সেন্স না খাটিয়েই যা দেখি তাই শেয়ার করে বসি?" এখন আমার আফছুছ একটা জিনিষের প্রতিবাদ করতে কি বিন্দু পরিমান সত্য কিংবা তথ্য আপানারা জেনে নিতে পারেন না? আমার প্রশ্ন আপনাদের কি কমন সেন্স বলতে কিছু আছে? নাকি রানাকে বাঁচাতেই এই ব্যার্থ চেস্টা চালালেন? নাকি ছাগলের তিন নম্বার বাচ্চাদের সামনে পণ্ডিত সাঁজতে চেয়েছিলেন? সব শেষে তাদের উদ্দেশ্য বলব শুধু একটা পক্ষ এখনও আঁকড়ে ধরে বসে না থেকে সত্যকে মেনে নিন এবং অযথাই যুক্তিহীন তর্ক কোন লাভ নেই। যুক্তিহীন তর্ক, মিথ্যা তথ্য আর মনগড়া কথা শুধুই বিভেদ বাড়াবে কমাবে না। তাই সকলেরই বুদ্ধি বা কমন সেন্স এর উদয় হবে এই আশা করে আজকের মত এটুকুই।

বানীঃ ১ সামান্য একটু প্লাস্টার খুলে পড়েছে। এটা তেমন কিছু নয়। – মো. সোহেল রানা,পৌর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্ববায়ক, (রানা প্লাজার মালিক) গতকাল ফাটল দেখা দেবার পরে রানা প্লাজার মালিক পৌর যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্ববায়ক মো. সোহেল রানা  মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন এই কথা। বানীঃ২  আমরা আগে থেকেই সচেতন ছিলাম। আমরা জানতাম বলে সব লোক সরিয়ে ফেলা হয়েছিল। কিন্তু

এফএ কমিউনিটি শিল্ড উইকিপিডিয়া।

দ্য ফুটবল এসোসিয়েশন কমিউনিটি শিল্ড (সাবেক চ্যারিটি শিল্ড) একটি ইংরেজ ফুটবল ট্রফি যা বার্ষিক ম্যাচ হিসেবে এফ.এ. প্রিমিয়ার লীগ ও এফ.এ. কাপ বিজয়ী দলের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়। এটি বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত সুপার কাপ এর সমতুল্য। যদি একটি দল দ্বৈত শিরোপা (প্রিমিয়ারশিপ এবং এফএ কাপ) জেতে তবে দ্বৈত বিজয়ীর সাথে প্রিমিয়ার লীগ রানার-আপ দলের খেলা

এম এল এম বিষয়ক যে কোন ধরনের প্রশ্ন ও সাহায্যের জন্য