BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

Category Archives: কাল্পনিক কল্পনা

বিজ্ঞানের আজব আবিষ্কার

বিজ্ঞানীদের বেশিরভাগ গবেষণার বিষয়বস্তু এবং ফলাফল বেশ গুরুগম্ভীর হয়। কিন্তু মাঝে মধ্যে অনেক আবিষ্কার এতই অদ্ভুত হয় যে, অবাক হয়ে যান স্বয়ং বিজ্ঞানীরাই। জীবন বাঁচাতে তেলাপোকা : যে তেলাপোকা অনেকের ভয়ের কারণ হয়, সেই তেলাপোকাই বাঁচাতে পারে মূল্যবান জীবন। জীবন্ত তেলাপোকা ব্যবহার করে বিজ্ঞানীরা তৈরি করেছেন রিমোট কন্ট্রোলড সাইবর্গ ককরোচ। এই সাইবর্গ তেলাপোকার কাজ হবে

Auto Draft

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ভৌতিক স্থাপনা

ভৌতিক বিষয়ে আগ্রহ আছে অনেকেরই। ছোটবেলায় ভূত-পেত্নীর গল্প পড়েননি বা শোনেননি এমন মানুষ কমই খুঁজে পাওয়া যাবে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে এমন সব স্থাপনা আছে যা নিয়ে শুধু ছোটদের কেন, ভয় রয়েছে বড়দেরও। এমন কিছু ভৌতিক স্থাপনা সম্পর্কে জানুন। টাওয়ার অব লন্ডন ১৫৩৬ সালে হেনরি ১৭ বা সেভেনটিনের সময়ে এক স্ত্রীলোককে এই টাওয়ারে শিরোচ্ছেদ করা হয়।

আশ্চর্য্য জনক সব ঘটনা!!!

  আমাদেরকে অবাক করে দেয় আমাদের চারপাশের ঘটে যাওয়া অনেক অদ্ভুত ঘটনা । মানুষের নখ যে গতিতে বাড়ে একই গতিতে উত্তর আমেরিকা ও ইউরোপ পরস্পর হতে সরেযাচ্ছে দূরে । মহাবিশ্বে সবচেয়ে শীতলতম স্থানহিসেবে বিবেচিত পরম শূন্যের চেয়ে ১ ডিগ্রীর মত উপরেরবুমেরাং নেবুলা। ভূতাত্ত্বিক কারণে প্রতিবছর প্রায় দুই ফুট করে বাড়ে এভারেস্টের উচ্চতা। ১৮১২ সালে ৮.৬

তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি! একটা অনুপ্রেনার গল্প! স্থির চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র!

"তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি!" একটা গল্প, অনুপ্রেনার গল্প! বদলে দিতে পারে আপনার জীবন! বাংলাদেশের প্রথম সাদাকালো স্থির চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র! ভিডিও আঁকারে এবং নিচে সম্পুর্ন স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র-টির লিরিক্স দেওয়া হল। ( টাইটেলঃ "তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি! একটা অনুপ্রেনার গল্প! স্থির চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র!" )

“তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি!” একটা গল্প, অনুপ্রেরনার গল্প! বদলে দিতে পারে আপনার জীবন! বাংলাদেশের প্রথম সাদাকালো স্থির চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র! ভিডিও আঁকারে এবং নিচে সম্পুর্ন স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র-টির লিরিক্স দেওয়া হল।  ( টাইটেলঃ “তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি!  একটা অনুপ্রেরনার গল্প! স্থির চিত্র স্বল্পদৈর্ঘ চলিচিত্র!” )  —- তোমার ছেড়ে যাওয়া, এবং আমি!  এক মুহুর্তেই ভুলে গিয়েছিলে

আসুন তৈরী করি ব্যাটারী চার্জিং লেভেল আর ব্যবহার করি যেকোন যন্ত্রে (খুব সহজে)

আসুন তৈরী করি “ব্যাটারী চার্জিং লেভেল” আর ব্যবহার করি যেকোন যন্ত্রে (খুব সহজে) আমাদের আনেকের মনে হয় এমন যদি হতো আমাদের কাছে একটা ব্যাটারী চার্জিং লেভেল থাকতো!!! হয়তো আপনি এই সার্কিট আপনি খুজছেন…………. —- মূলকথাঃ ইলেকট্রনিক্স প্রিয় সকলকে জানাই অভিনন্দন। আজ আপনাদের সাথে আমি এমন একটি মজার ব্যাটারী চার্জিং লেভেল সার্কিটের সাথে পরিচয় করিয়ে দেব

মানুষ অদ্ভুত প্রানী। এরা কখনই আপনার ভালো কাজগুলো মনে রাখবে না!

অ্যাপলের দুটি প্যাটেন্ট নকল করার অভিযোগে দক্ষিণ কোরিয়ার আরেক প্রযুক্তি পণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্যামসাং ১১ কোটি ৯৬ লাখ ডলার জরিমানা! অর্থাৎ স্যামসাংকে আবারও ১১৯ মিলিয়ন ডলার পরিশোধ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলকে। তিন বছর ধরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের বিভিন্ন বিষয়ে মামলা চলছে। http://www.technobuffalo.com/wp-content/uploads/2012/11/apple-vs-samsung-court-011.jpg এর মধ্যে ভিডিও আদান প্রদান ও মোবাইলের ক্যামেরা ব্যবহারের বিষয়ে অ্যাপলের বিরুদ্ধে পেটেন্ট আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে স্যামসাং। স্যামসাং এর দাবী অ্যাপলের আইফোন ফাইভ স্যামসাং গ্লাক্সি-এর ব্লুটুথে আদান প্রদান করার অ্যাপস নকল করেছে। পাশাপাশি আইফোন ফাইভ-এর ক্যামেরার অ্যাপ্স এর আইডিয়াটাও স্যামসাং গ্লাক্সি। ফলে অ্যাপলের আইফোন ফাইভের বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানিয়েছে স্যামসাং। বলা বাহুল্য মোবাইল ফোন কিংবা স্মার্ট ফোন যাই বলি না কেন বিক্রি এবং জনপ্রিয়তার দিক থেকে এখন কোরিয়ার স্যামসাং-ই সবচেয়ে এগিয়ে আছে। অপরদিকে গুগোলের Android এর কল্যানে স্যামসাং-এর স্যামসাং গ্লাক্সিই বলা যায় বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় হ্যান্ডসেট। http://images.dailytech.com/nimage/US_Apple_v_Samsung_Courtroom_Wide.jpg যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাপলেরও রয়েছে পন্যের মান নিয়ন্ত্রনের উপর বিশেষ সুনাম এবং পাশাপাশি অ্যাপলের ব্রান্ডিং লেভেলও হাই। অপরদিকে অ্যাপলের রয়েছে নিজেস্ব অপারেটিং সিস্টেম ম্যাক ওস! এদিক থেকে অবস্য ম্যাকই এগিয়ে। http://www.technobuffalo.com/wp-content/uploads/2012/11/apple-vs-samsung-court-001-640x480.jpg শেষে একটা ছবির মাধ্যমে স্যামসাং বনাম অ্যাপল এবং সাথে নোকিয়ার বর্তমান পরিস্থিতি স্পস্ট করছি। আর সময় পেলে আমার ব্লগ থেকে ঘুরে আসতে ভুলবেন না! আজ এটুকুই মামলার পরবর্তি রায় নিয়ে আবার ফিরে আসব আশা করছি ততক্ষন পর্যন্ত সবাই ভাল থাকবেন। http://youngblah.com/wp-content/uploads/2012/09/Apple-Vs-Samsung-Vs-Nokia.jpg বর্তমানে স্যামসাং বনাম অ্যাপল যুদ্ধে যখন পৃথিবী তোলপাড় ঠিক এমন সময় নিরবে নিবৃতে যেন নোকিয়ার সব আয়োজনই ব্যার্থ। অথচ তিন-চার বছর পুর্বেই সিমব্রিয়ান অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে নোকিয়াই ছিল সবার সামনে।

মানুষ অদ্ভুত প্রানী। এরা কখনই আপনার ভালো কাজগুলো মনে রাখবে না। কিন্তু সকল ক্ষেত্রেই এরা আপনার ব্যর্থতার একবর্ণও ভুল করেও ভুলবে না।  সামনে থেকে কথা শোনায়।  পিছন থেকে খোঁচা দেয়।     যদি প্রশ্ন করা হয় কোনটা বেশী সহজ জীবনে যুদ্ধ করা না কি যুদ্ধ না করে হার স্বীকার করা…? উত্তরটা সহজ হার মানা আর

বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ক্রিকেট-ই দিতে পারে একমাত্র স্বস্তি………….

বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্তিতিতে দেশের মানুষের যখন একেবারে দম আটকে যাওয়ার মত অবস্থা,তখন আসছে ক্রিকেট টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৪ দেশের মানুষকে দিবে একটু হলেও স্বস্তির প্রয়াস। ক্রিকেট উম্মদনায় আবারো বাসবে বাঙ্গালি জাতি। বড় দুই রাজনৈতিক দলের রাজনৈতিক মাঠ দখলে রাখার প্রতিযোগিতায় যখন দেশের রাজনৈতিক আবহাওয়া এই শীত মৌসুমেও গরম, তখন ক্রিকেট মাঠের প্রতিযোগিতা দেশের রাজনৈতিক আবহাওয়া ঠাণ্ডা

খুশির জোয়ারে আবারো ভাসবে বাংলাদেশ।।কারন আসছে ক্রিকেট টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ বাংলাদেশ……………

ক্রিকেট উম্মাদনায় ভাসার জন্য আবারও তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশ।  ১৯৯৯-সালে ক্রিকেট বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের অভিষেক হয়। এর পর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি বাংলাদেশকে।২০০০-সালে টেস্ট ক্রিকেটের স্ট্যাটাস অর্জন করে বাংলাদেশ দল।সম্প্রতি বাংলাদেশে এবং বাংলাদেশের বাইরে অনুষ্ঠিত সিরিজ ও এশিয়া কাপে বাংলাদেশ দলের  ভালো পারফরমেঞ্চ ভক্তদের মনে  নতুন করে আশা যুগিয়েছে।বাংলাদেশ দল তার ধারাবাহিক ভালো পারফরমেঞ্চের মাধ্যমে

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ!

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! : বিশ্বের অন্যতম একক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্তহীন সমস্যা জর্জরিত ভারতের সম্পর্ক যে সমমর্যাদার ভিত্তিতে নয়, অনেকটা প্রভু আর দাসসুলভ তা ভারত প্রায় ভুলতেই বসেছিল। কিন্তু ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় নারী কূটনীতিককে তার দুই সন্তানের সামনে থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতার করে হাতকড়া পরানো, এরপর বিবস্ত্র করে দেহ তল্লাশি এবং শেষমেশ নেশাখোরদের সঙ্গে কয়েদখানায় নিক্ষেপ করে পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র হয়ত বা সমস্যায় জর্জরিত ভারতকে মনে করিয়ে দিল এ সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! এদিকে অনলাইন নিউজপোর্টাল বিডিনিউজের একটি খবর উল্লেখ না করলেই নয়। ‘দেবযানি কাণ্ডের পেছনে কূটনৈতিক বিরোধ’ শিরোনামে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ‘ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের যুক্তরাষ্ট্র সফরের মধ্যেই কূটনীতিক দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত হয়, যার পেছনে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে দুই দেশের মতপার্থক্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করছেন দিল্লির এক কর্মকর্তা। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘সুজাতা সিং ওই সফরে বেশ কয়েকটি স্পর্শকাতর বিষয়ে ভারতের অবস্থান ওয়াশিংটনের সামনে তুলে ধরেন, যার শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের মতপার্থক্যের বিষয়টি। দেবযানিকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের একটি বার্তা দিতে চেয়েছে, যাতে আমরা ভেঙে পড়ি। এটা বিশ্বাস করার মতো যথেষ্ট কারণও আছে।’ ফ্রিল্যান্সিংয়ের অথবা আঊটসোর্সিং - মোহাম্মাদ মেহেদি মেনাফা তিনি জানান, এর আগে রাশিয়ার একাধিক কূটনীতিকের বিরুদ্ধে বীমা জালিয়াতির অভিযোগ উঠলেও মার্কিন প্রশাসন নিউইয়র্ক পুলিশ বা অ্যাটর্নির কার্যালয়কে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেয়নি। দেবযানির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগের কথা তারা বলছে, রুশ কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুতর। গৃহকর্মীর ভিসা আবেদনে মজুরি নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেয়া এবং তাকে চুক্তি অনুযায়ী পারিশ্রমিক না দিয়ে বেশি কাজ করানোর অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার ভারতীয় কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের পর প্রকাশ্যে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যায় নিউইয়র্কের পুলিশ। থানায় নেয়ার পর ওই কূটনীতিককে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয় এবং তাকে মাদক চোরাচালানি ও যৌনকর্মীদের সঙ্গে একই কারাকক্ষে রাখা হয় বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু রাশিয়ানদের ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপই নেয়া হয়নি। কারণ, তাতে কূটনৈতিক সম্পর্ক নষ্ট হবে বলে মস্কো হুমকি দিয়েছিল। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা বলছেন, নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশে রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে ভারত সরকার যে অবস্থান নিয়েছে তাতে যুক্তরাষ্ট্র হতাশ (তবুও তারা ক্ষুব্ধ বলতে নারাজ)। এই মতপার্থক্যের বিষয়টি প্রকাশ্য। এ নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। কিন্তু সুজাতা সিং যখন ভারতের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন, তখনই যুক্তরাষ্ট্র আমাদের এই শক্ত বার্তা দিতে চাইল।’

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! : বিশ্বের অন্যতম একক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্তহীন সমস্যা জর্জরিত ভারতের সম্পর্ক যে সমমর্যাদার ভিত্তিতে নয়, অনেকটা প্রভু আর দাসসুলভ তা ভারত প্রায় ভুলতেই বসেছিল। কিন্তু ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় নারী কূটনীতিককে তার দুই সন্তানের সামনে থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতার করে হাতকড়া পরানো, এরপর

ভারতকে মনে করিয়ে দিল এ সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ!

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! : বিশ্বের অন্যতম একক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্তহীন সমস্যা জর্জরিত ভারতের সম্পর্ক যে সমমর্যাদার ভিত্তিতে নয়, অনেকটা প্রভু আর দাসসুলভ তা ভারত প্রায় ভুলতেই বসেছিল। কিন্তু ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় নারী কূটনীতিককে তার দুই সন্তানের সামনে থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতার করে হাতকড়া পরানো, এরপর বিবস্ত্র করে দেহ তল্লাশি এবং শেষমেশ নেশাখোরদের সঙ্গে কয়েদখানায় নিক্ষেপ করে পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র হয়ত বা সমস্যায় জর্জরিত ভারতকে মনে করিয়ে দিল এ সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! এদিকে অনলাইন নিউজপোর্টাল বিডিনিউজের একটি খবর উল্লেখ না করলেই নয়। ‘দেবযানি কাণ্ডের পেছনে কূটনৈতিক বিরোধ’ শিরোনামে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ‘ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের যুক্তরাষ্ট্র সফরের মধ্যেই কূটনীতিক দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত হয়, যার পেছনে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে দুই দেশের মতপার্থক্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করছেন দিল্লির এক কর্মকর্তা। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘সুজাতা সিং ওই সফরে বেশ কয়েকটি স্পর্শকাতর বিষয়ে ভারতের অবস্থান ওয়াশিংটনের সামনে তুলে ধরেন, যার শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের মতপার্থক্যের বিষয়টি। দেবযানিকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের একটি বার্তা দিতে চেয়েছে, যাতে আমরা ভেঙে পড়ি। এটা বিশ্বাস করার মতো যথেষ্ট কারণও আছে।’ ফ্রিল্যান্সিংয়ের অথবা আঊটসোর্সিং - মোহাম্মাদ মেহেদি মেনাফা তিনি জানান, এর আগে রাশিয়ার একাধিক কূটনীতিকের বিরুদ্ধে বীমা জালিয়াতির অভিযোগ উঠলেও মার্কিন প্রশাসন নিউইয়র্ক পুলিশ বা অ্যাটর্নির কার্যালয়কে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেয়নি। দেবযানির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগের কথা তারা বলছে, রুশ কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুতর। গৃহকর্মীর ভিসা আবেদনে মজুরি নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেয়া এবং তাকে চুক্তি অনুযায়ী পারিশ্রমিক না দিয়ে বেশি কাজ করানোর অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার ভারতীয় কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের পর প্রকাশ্যে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যায় নিউইয়র্কের পুলিশ। থানায় নেয়ার পর ওই কূটনীতিককে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয় এবং তাকে মাদক চোরাচালানি ও যৌনকর্মীদের সঙ্গে একই কারাকক্ষে রাখা হয় বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু রাশিয়ানদের ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপই নেয়া হয়নি। কারণ, তাতে কূটনৈতিক সম্পর্ক নষ্ট হবে বলে মস্কো হুমকি দিয়েছিল। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা বলছেন, নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশে রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে ভারত সরকার যে অবস্থান নিয়েছে তাতে যুক্তরাষ্ট্র হতাশ (তবুও তারা ক্ষুব্ধ বলতে নারাজ)। এই মতপার্থক্যের বিষয়টি প্রকাশ্য। এ নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। কিন্তু সুজাতা সিং যখন ভারতের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন, তখনই যুক্তরাষ্ট্র আমাদের এই শক্ত বার্তা দিতে চাইল।’

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! : বিশ্বের অন্যতম একক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্তহীন সমস্যা জর্জরিত ভারতের সম্পর্ক যে সমমর্যাদার ভিত্তিতে নয়, অনেকটা প্রভু আর দাসসুলভ তা ভারত প্রায় ভুলতেই বসেছিল। কিন্তু ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় নারী কূটনীতিককে তার দুই সন্তানের সামনে থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতার করে হাতকড়া পরানো, এরপর

বিশ্বজিৎ হত্যা: ছাত্রলীগের ৮ জনের ফাঁসি, ১৩ জনের যাবজ্জীবন

বিশ্বজিৎ হত্যা: ছাত্রলীগের ৮ জনের ফাঁসি, ১৩ জনের যাবজ্জীবন বিশ্বজিৎ হত্যা মামলায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ২১ জন কর্মীর মধ্যে আটজনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। বাকি ১৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার দুপুর ১২টা ২৫ মিনিটের দিকেবিশ্বজিৎ ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪-এর বিচারক এ বি এম

আমার মেয়েকে‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে

যুক্তরাষ্ট্র এবং ভারতের সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! : বিশ্বের অন্যতম একক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অন্তহীন সমস্যা জর্জরিত ভারতের সম্পর্ক যে সমমর্যাদার ভিত্তিতে নয়, অনেকটা প্রভু আর দাসসুলভ তা ভারত প্রায় ভুলতেই বসেছিল। কিন্তু ভারতের একজন শীর্ষস্থানীয় নারী কূটনীতিককে তার দুই সন্তানের সামনে থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতার করে হাতকড়া পরানো, এরপর বিবস্ত্র করে দেহ তল্লাশি এবং শেষমেশ নেশাখোরদের সঙ্গে কয়েদখানায় নিক্ষেপ করে পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র হয়ত বা সমস্যায় জর্জরিত ভারতকে মনে করিয়ে দিল এ সম্পর্ক সমমর্যাদার নয় বরং এ সম্পর্ক প্রভু আর দাসসুলভ! এদিকে অনলাইন নিউজপোর্টাল বিডিনিউজের একটি খবর উল্লেখ না করলেই নয়। ‘দেবযানি কাণ্ডের পেছনে কূটনৈতিক বিরোধ’ শিরোনামে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ‘ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সুজাতা সিংয়ের যুক্তরাষ্ট্র সফরের মধ্যেই কূটনীতিক দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত হয়, যার পেছনে বাংলাদেশ প্রসঙ্গে দুই দেশের মতপার্থক্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করছেন দিল্লির এক কর্মকর্তা। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘সুজাতা সিং ওই সফরে বেশ কয়েকটি স্পর্শকাতর বিষয়ে ভারতের অবস্থান ওয়াশিংটনের সামনে তুলে ধরেন, যার শীর্ষে ছিল বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের মতপার্থক্যের বিষয়টি। দেবযানিকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের একটি বার্তা দিতে চেয়েছে, যাতে আমরা ভেঙে পড়ি। এটা বিশ্বাস করার মতো যথেষ্ট কারণও আছে।’ ফ্রিল্যান্সিংয়ের অথবা আঊটসোর্সিং - মোহাম্মাদ মেহেদি মেনাফা তিনি জানান, এর আগে রাশিয়ার একাধিক কূটনীতিকের বিরুদ্ধে বীমা জালিয়াতির অভিযোগ উঠলেও মার্কিন প্রশাসন নিউইয়র্ক পুলিশ বা অ্যাটর্নির কার্যালয়কে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেয়নি। দেবযানির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগের কথা তারা বলছে, রুশ কূটনীতিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তার চেয়ে অনেক বেশি গুরুতর। গৃহকর্মীর ভিসা আবেদনে মজুরি নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেয়া এবং তাকে চুক্তি অনুযায়ী পারিশ্রমিক না দিয়ে বেশি কাজ করানোর অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার ভারতীয় কনস্যুলেটের ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানি খোবরাগাড়েকে গ্রেফতারের পর প্রকাশ্যে হাতকড়া পরিয়ে নিয়ে যায় নিউইয়র্কের পুলিশ। থানায় নেয়ার পর ওই কূটনীতিককে বিবস্ত্র করে তল্লাশি চালানো হয় এবং তাকে মাদক চোরাচালানি ও যৌনকর্মীদের সঙ্গে একই কারাকক্ষে রাখা হয় বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। কিন্তু রাশিয়ানদের ক্ষেত্রে কোনো পদক্ষেপই নেয়া হয়নি। কারণ, তাতে কূটনৈতিক সম্পর্ক নষ্ট হবে বলে মস্কো হুমকি দিয়েছিল। ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা বলছেন, নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশে রাজনৈতিক সঙ্কটের মধ্যে ভারত সরকার যে অবস্থান নিয়েছে তাতে যুক্তরাষ্ট্র হতাশ (তবুও তারা ক্ষুব্ধ বলতে নারাজ)। এই মতপার্থক্যের বিষয়টি প্রকাশ্য। এ নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। কিন্তু সুজাতা সিং যখন ভারতের অবস্থান স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন, তখনই যুক্তরাষ্ট্র আমাদের এই শক্ত বার্তা দিতে চাইল।’

নিউইয়র্কের ভারতীয় কনস্যুলেটর ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানির বাবা উত্তম খোবরাগাড়ে আজ মঙ্গলবার জানিয়েছেন, তাঁর মেয়েকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে। দেবযানিকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য উত্তম খোবরাগাড়ে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।উত্তম খোবরাগাড়ে টাইমস আব ইন্ডিয়াকে বলেন, সরকার তাঁর মেয়েকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠিয়েছে। দুই দেশের মধ্যকার রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে তাঁর মেয়েকে বলির পাঁঠা বানানো হয়েছে।

এবার ফেসবুকের উপড় পড়াশুনা করে আপনিও হতে পারেন একজন সম্মানিত ডিগ্রীধারী!

ফেসবুক ব্যবহার করে নিয়ে নিন ডিগ্রী এবং পরবর্তিতে থাকছে পিএইচডি এর সুবিধা! এবার ফেসবুকের উপড় পড়াশুনা করে আপনিও হতে পারেন একজন সম্মানিত ডিগ্রীধারী! অবাক হচ্ছেন? হেডলাইন দেখে অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন যারা ফেসবুকে অযথাই ঘন্টার পর ঘন্টা নস্ট করছে তারাই হবে ডিগ্রীধারী মহা শিক্ষিত? শুধু ফেসবুক নয়, ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটেরও উপরেও

বিল গেটস, বলছেন…

আমি একটি কঠিন কাজ করার জন্য একজন অলস ব্যক্তিকেই পছন্দ করবো, কারন সে এই কঠিন কাজটি করার একটা সহজ উপায় বের করে নেবেই। -বিল গেটস

গার্ড : ব্যাপার কী! :D

ট্রেন ছেড়ে দিয়েছে। এমন সময় তিনজন লোক ট্রেনের দিকে দৌড়ে আসছে দেখে করিত্কর্মা গার্ড টেনে-হিঁচড়ে তাদের মধ্য থেকে দু’জনকে তুলতে পেরেছে। ট্রেনের গতি বেড়ে যাওয়ায় বাকিজনকে তুলতে পারেনি। গার্ড : ব্যাপার কী! এত কষ্ট করে তিনজনকে তুলতে না পারলেও দুজনকে তো তুলেছি, অথচ আপনারা একটুও ধন্যবাদ দিচ্ছেন না যে? . . . . . .

পুঙটা পিচ্ছি :p

অসুস্থ ছোট ছেলে কিছুতেই ট্যাবলেট খেতে চায় না । তাই মা বাধ্য হয়ে সিদ্ধ ডিমের ভেতরে ট্যাবলেট ঢুকিয়ে ছেলেকে খেতে দেয়… কিছুক্ষণ পর মা এসে জিজ্ঞেস করলেন… মাঃ বাবা, ডিমটা কি খেয়েছ? . . . . . . ছেলেঃ হ্যাঁ মা, খেয়েছি । তবে ডিমের বিচিটা ফেলে দিয়েছি। 🙂

একদিন তুমি বুঝবে :(

একদিন তুমি বুঝবে,অবাক হয়ে বলবে, এতোটা ভালোবাসো তুমি,আমাকে! সেদিন আমি বলবো,এর চেয়েও অনেক ভালোবাসি তোমাকে।।:'(:'( মনের মধ্যে খুব কষ্ট হচ্ছে।।সহ্য ও করতে পারছি না,আবার প্রকাশ ও করতে পারছি না।। অসহ্য যন্ত্রণা হচ্ছে,হৃদয় ক্ষরণ হচ্ছে,মনটা খুব কাদঁছে।:'(:'( অনেকদিন পর কাদঁতে পারছি,আর বলতে পারছি,জান সত্যিই খুব ভালোবাসি,সেই আগের মতন।। কখনো ভুলি নি মূহূর্তের জন্য,ভুলবো না কখনো।। একটা

চোখে পড়লো না ?

তুমি আমার হাসিটাই দেখলে এর আড়ালের কান্নাটুকু তোমার চোখে পড়লো না ? দেখবে কি করে সেগুলো যদি দেখতে পেতে তাহলে আজ আমাকে হাসির আড়ালে এভাবে কেঁদে কেঁদে মরতে হতো না আমি আজ ও বোঝাতে পারলাম না কতোটা ভালবাসি তোমায় সেটা তোমাকে আমি বোঝাইতে পারি নাই নাকি তুমি বোঝতে চাও নি আমার ব্যর্থতা নাকি তোমার নিষ্ঠুরতা

♥ So Romantic Love Story ♥

A girl and a guy are on a motorcycle Girl: This is really scary, slow down! Guy: No, I’m having too much fun! Girl: Please stop! Guy: First hug me Girl: *hugs* Guy: Tell me you love me Girl:I love you, can you slow down now? Guy: Can you take my helmet off and put