BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

বাড়ছে শুল্ক ফাঁকির প্রবণতা

মুঠোফোন আমদানিতে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর সমন্বয়হীনতা ও নিয়ন্ত্রণের অভাবে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার প্রবণতা বাড়ছে। চালান পত্রে পণ্যের কম দাম দেখিয়ে শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার কারণে মুঠোফোনের বাজারে অস্থিরতা তৈরি হচ্ছে বলে অভিযোগ ব্যবসায়ীদের। মোবাইল ফোন আমদানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রেজওয়ানুল হক বলেন, নন-ব্র্যান্ড, ব্র্যান্ড, গ্রে—সব ধরনের সেট আমদানিতেই শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার প্রবণতাটা আশঙ্কাজনক বাড়ছে হারে।

বাজারে ঘুরে দেখা গেছে, রাজস্ব বিভাগের কাছে ঘোষিত বেশ কিছু মডেলের মুঠোফোনের শুল্কায়নযোগ্য মূল্য আর বাজারে বিক্রয়মূল্যের মধ্যে বিশাল পার্থক্য। দেশে প্রায় বাজারে সাড়ে আট হাজার টাকা দামে বিক্রি হওয়া একটি স্মার্টফোনের শুল্কায়নযোগ্য মূল্য দেখানো হয়েছে মাত্র ছয় ডলার। যা রীতিমতো অবিশ্বাস্য।

আমদানিকারকদের তথ্যমতে, দেশে মুঠোফোনের বার্ষিক বাজার প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকার। এর মধ্যে অসাধু ব্যবসার আকার ১০ শতাংশ হলেও তা দাঁড়ায় ৫৫০ কোটি টাকার কাছাকাছি। ফলে প্রতিবছর কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার, যা ক্ষেত্রবিশেষে আরও বেশি বলে ধারণা ব্যবসায়ীদের।
আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা বলছেন, শুল্ক ফাঁকি দিয়ে বেশি লাভ করার উদ্দেশ্যে অনেকেই মুঠোফোন আমদানিতে আন্ডার ইনভয়েসিং (চালানপত্রে পণ্যের দাম কম দেখানো) করছেন। অসাধু আমদানিকারকদের এ প্রবণতার কারণে অনেকেই প্রতিযোগিতায় টিকতে না পেরে নিজেদের ব্যবসা গুটিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছেন। যাঁরা ব্যবসা করছেন, তাঁদের অনেকেরই বেহাল দশা।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, ২০১৪ সালের ৮ এপ্রিল ফাইভ স্টার ব্র্যান্ডের টি৫০ মডেলের এক হাজার মুঠোফোন আমদানি করা হয়। এর শুল্কায়নের মূল্য ধরা হয়েছে সাত ডলার। দেশীয় মুদ্রায় এর শুল্কায়নযোগ্য মূল্য দাঁড়ায় মাত্র ৫৫১ টাকা (এক ডলারে ৭৮ দশমিক ৭৭ টাকা ধরে)। অথচ সেটটি বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৭ হাজার ৮৫০ টাকায়।

গত বছরের ১ ফেব্রুয়ারি আমদানি করা লাভা আইরিস ৩৪৯এস মডেলের শুল্কায়নযোগ্য মূল্য দেখানো হয়েছে ১৫ ডলার; যা দেশীয় মুদ্রায় দাঁড়ায় ১ হাজার ১৮২ টাকা। অথচ দেশীয় বাজারে মুঠোফোনটি ৩ হাজার ২৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আবার এই একই মডেলের মুঠোফোন ৩০ মার্চ আমদানি করা হয় ১০ ডলারে। শুল্কযোগ্য দাম কম দেখিয়ে আমদানি করা এ ধরনের সেট বাজারে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে বলে অনুসন্ধানে দেখা যায়।

সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, এত কম দামে স্মার্টফোন আমদানি সম্ভব নয়। এর পাশাপাশি মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে অধিক সেট আমদানি করারও অভিযোগ রয়েছে অসাধু আমদানিকারকদের বিরুদ্ধে।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ২ কোটি ৩২ লাখ মুঠোফোন আমদানি করা হয়েছে। যার শুল্কায়নযোগ্য মূল্য ৩৬৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ গড়ে প্রতিটি সেটের (সাধারণ, স্মার্টফোন ও ট্যাব) শুল্কায়নযোগ্য মূল্য দাঁড়ায় ১ হাজার ৫৭১ টাকা।
অন্যদিকে চলতি ২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই-জানুয়ারি) ১ কোটি ৪৯ লাখ মুঠোফোন আমদানি করা হয়েছে। যার শুল্কায়নযোগ্য মূল্য ২২৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ গড়ে প্রতিটি সেটের শুল্কায়নযোগ্য মূল্য দাঁড়ায় ১ হাজার ৫২২ টাকা। এক বছরের ব্যবধানে মুঠোফোনের শুল্কায়নযোগ্য মূল্য ৪৯ টাকা কমে যাওয়াই প্রমাণ করে আমদানিতে আন্ডার ইনভয়েসিং হচ্ছে।

গত ১৮ মার্চ শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রায় পাঁচ কোটি টাকা দামের মুঠোফোন আটক করে বিমানবন্দর শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। স্বল্প মূল্যের কম্পিউটারসামগ্রীর ঘোষণা দিয়ে দামি ব্র্যান্ডের মুঠোফোন আমদানি করা হচ্ছিল। বিমানবন্দর কাস্টমসের যুগ্ম কমিশনার কাজী মুহাম্মদ জিয়া উদ্দীন প্রথম আলোকে জানান, হংকং থেকে কম্পিউটারসামগ্রী আনার ঘোষণা থাকলেও আনা হয় বিপুল পরিমাণে মুঠোফোন।
শুল্ক কর্মকর্তাদের মতে, রিকন্ডিশন্ড গাড়ি, ফ্রিজ, কম্পিউটার মনিটর বা অন্যান্য আমদানি করা পণ্য শুল্কায়নের ক্ষেত্রে সুস্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু মুঠোফোনের অ্যাসেসমেন্ট ভ্যালু সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট নির্দেশনা না থাকায় তাঁদের করার কিছুই থাকে না। এ কারণে আমদানিকারক যে মূল্য ঘোষণা দেন, সেই মূল্যেই তাঁদের মূল্যায়ন করতে হয়। তাঁদের মতে, মুঠোফোনভেদে এর আমদানি মূল্য নির্ধারণ করা প্রয়োজন। তা না হলে এ অবস্থা চলতেই থাকবে।

রেজওয়ানুল হকের মতে, মুঠোফোনের ধরনভেদে আলাদা এইচএস কোড ও ট্যারিফ ভ্যালু নির্ধারণ করে দিলে শুল্ক ফাঁকি কিছুটা হলেও কমবে। অর্থাৎ বার (সাধারণ) ফোন, স্মার্টফোন, ট্যাবের জন্য পৃথক এইচএস কোড ও শুল্কহার করা যেতে পারে। এ ছাড়া সেটভেদে ট্যারিফ ভ্যালু নির্ধারণ করলেও শুল্ক ফাঁকি কমবে। পাশাপাশি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড, কাস্টমস ও বিটিআরসির সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।



সর্বশেষ ১২টি:

.