BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

অদিক সমায় বসে কাজ করছেন? জেনে নিন নিজের খতিগুল !

কাজের চাপে এবং আলসেমির কারণে আমরা অনেকেই  অদিক সমায় বসে কাজ করে থাকি। শুধুমাত্র অফিসের ডেস্কে বসেই অনেকটা সময় কাটান অনেকে। তাছাড়া বাসায় ফিরে ক্লান্তি লাগলে এবং টিভি দেখার কারণেও অনেকে একটানা বসে থাকেন। এতে আপনি নিজেই নিজের  ক্ষতি করছেন। তাৎক্ষণিক ভাবে এই ক্ষতি দেখা না গেলেও পরবর্তীতে শারীরিক নানা সমস্যাই বলে দেবে স্থায়ীভাবে মারাত্মক ক্ষতি হয়ে গিয়েছে আপনার দেহের। আজ জেনে নিন অদিক সমায় বসে থেকে নিজের কী ক্ষতি করছেন আপনি।

অদিক সমায় বসে কাজ করছেন? জেনে নিন নিজের খতিগুল !

অদিক সমায় বসে কাজ করছেন? জেনে নিন নিজের খতিগুল !

১) অতিরিক্ত সময় অদিক সমায় বসে থাকার কারণে আপনার দেহের কোনো শারীরিক পরিশ্রম হচ্ছে না। এতে করে আপনার দেহের সঠিক কার্যকলাপ ব্যহত হচ্ছে। অল্পতেই বুড়িয়ে যাচ্ছে আপনার দেহ।

২) অদিক সমায় বসে থাকার ফলে দেহের নিচের অংশের স্বাভাবিক কার্যকলাপ একেবারেই ব্যহত হয়। সেইসাথে আমাদের পরিপাকতন্ত্রের ওপর পড়ে মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব। স্বাভাবিক খাদ্যহজম প্রক্রিয়া বাধাপ্রাপ্ত হয়। এবং হজমে সমস্যার কারণে দেহে নানা ধরণের সমস্যা হওয়া শুরু করে।

৩) মেরুদণ্ডের উপর অনেক বেশি চাপ পড়ে যখন আপনি অনেক বেশি সময় অদিক সমায় বসে থাকেন। মেরুদণ্ডের জয়েন্ট ক্ষতিগ্রস্থ হয় অনেক বেশি।

৪) অদিক সমায় বসে থাকার ফলে শারীরিক সমস্যার পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্যেরও সমস্যা দেখা দেয়। যারা একটানা বসে কাজ করতে থাকেন তাদের নানা ধরণের মানসিক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, যেমন, হ্যালুসিনেশন, চিন্তা ক্ষমতা লোপ পাওয়া, বুদ্ধি কমে যাওয়া ইত্যাদি। এরকারন হচ্ছে একটানা বসে হয় আপনি একই কাজ করে চলেছেন অথবা অযথাই নানা চিন্তা করে চলেছেন যা সত্যিকার অর্থেই আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

৫) গবেষণায় দেখা যায় যারা অদিক সমায় বসে থাকেন এবং শারীরিক পরিশ্রম একেবারেই করেন না তাদের দীর্ঘমেয়াদী হৃদপিণ্ডের সমস্যা, উচ্চ রক্ত চাপ, ডায়বেটিস এবং ক্যান্সারের মতো রোগ বাসা বাঁধে দেহে।

৬) বাতের ব্যথা অন্যান্য জয়েন্টে ব্যথার মূল কারণ হচ্ছে একটানা বসে থাকা।

৭) অদিক সমায় বসে থাকার কারণে শারীরিক পরিশ্রম হয় না বলে মুটিয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়। বিশেষ করে পেটের মেদ বেড়ে যায়।



সর্বশেষ ১২টি:

.