BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

এক জনের মাথা অন্য জনের শরীরে!

চোখ, কান, নাক, মুখ প্রতিস্থাপন শেষে এবার আস্ত মাথাটাই ট্রান্সপ্ল্যান্ট করতে চান গবেষকরা। মানে একের মাথা অন্যের শরীরে। ঘটনাটাকে ফ্রাঙ্কেনস্টাইনের কাণ্ড মনে হলেও অাগামী দুই বছরেই নাকি এটা সম্ভব করতে চলেছেন ইতালির চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা।

এক জনের মাথা অন্য জনের শরীরে!

এক জনের মাথা অন্য জনের শরীরে!

চলতি গ্রীষ্মেই ওই গবেষকরা হাতে নিচ্ছেন বিশেষ এক প্রকল্প। মূল গবেষক হিসেবে আছেন ইতালির তুরিন অ্যাডভান্সন্ড নিউরোমডুলেশন গ্রুপের বিজ্ঞানী ড. সার্জিও ক্যানাভেরো। ২০১৭ সালের মধ্যে একজনের শরীরে অন্যের মাথা বসানোর দায়িত্ত্ব নিয়েছেন তিনি।

এই প্রকল্প সফল হলে গ্রহীতা পাবে সম্পূর্ণ নতুন একটা শরীর। এক মূহুর্তে সেরে যাবে যাবতীয় রোগ-বালাই। বেড়ে যাবে আয়ুও! তবে সমালোচকদের মতে, এক্সপেরিমেন্টটি নিছক ‘কল্প কাহীনি’ ছাড়া আর কিছু নয়।

নিউ সায়েন্টিস্ট ম্যাগাজিনে প্রকাশিত প্রতিবেদনে ড. ক্যানাভেরো জানান, এই অস্ত্রোপচারের ক্ষেত্রে প্রধান সমস্যাটা হলো নতুন শরীরের সঙ্গে মগজ ও স্নায়ুকে মেলানো। মাথা তো শুধু দাতার শরীরে কেটে এনে বসিয়ে দিলেই হবে না, মেরুদণ্ডের কশেরুকার সঙ্গে যুক্ত করতে সকল স্নায়ু। আবার দাতার শরীর বর্জন করতে পারে গ্রহীতার মস্তিষ্ক। আবার ডোনার মারা গেলে অক্সিজেনের অভাবে তার কোষগুলোও দ্রুত মরতে থাকে। সেগুলোকে সতেজ রাখাও জরুরী।

ক্যানাভেরোর এই পরীক্ষায় গিনিপিগ হতে রাজি হয়েছেন অনেকে। অর্থাৎ মৃত দাতার শরীরে নিজেকে আবিষ্কার করতে তারা উৎসাহতসাহী।

সূত্র: দ্য মিরর



সর্বশেষ ১২টি:

.