BLACK blog এ আপনাকে স্বাগতম! আপনি হতে পারেন BLACK blog পরিবারের নিয়মিত একজন সদস্য। আপনার লেখা প্রকাশ করতে পারেন আমাদের যেকোন বিভাগে। আমাদের বিভাগ সমূহঃ " পৃথিবী আজব ঘটনা, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা" যে কোন বিষয় সম্পর্কে। ধন্যবাদ - BLACK iz Limited এর পক্ষ থেকে! অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ,  পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা, গুনিজন কহেন, অন্যান্য এবং আরও কিছু, পৃথিবী আজব ঘটনা, ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫, গুনিজন কহেন , জন্মদিনের উইস করার এসএমএস, সমস্যা পরামর্শ সমাধান , মেয়েদের মেহেদি ডিজাইন, বাচ্চাদের নাম , পৃথিবীর ঐতিহাসিক প্রবাদ, পর্দার পেছনের ঘটনা, যত অদ্ভুত আবিস্কার , কাল্পনিক কল্পনা

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আইরিশদের জয়

বিশ্বকাপের ৩০তম ম্যাচে শেষ দিকে জমে উঠা লড়াইয়ে জয় পেল আইরিশরা। ব্রেন্ডন টেইলরের জিম্বাবুয়েকে ৫ রানে হারিয়ে জয় ছিনিয়ে নিল এগারোতম বিশ্বকাপের চমক হিসেবে খেলতে আসা আয়ারল্যান্ড।
n2

ক্ষণে ক্ষণে ম্যাচের দৃশ্যপট পাল্টাতে থাকা এ ম্যাচের শেষ দিকে লড়াই জমে উঠে দু’দলের। তবে, ৩৩২ রানের জয়ের টার্গেটে খেলতে নেমে জিম্বাবুয়ে ৪৯.৩ ওভার থেকে সবক’টি উইকেট হারিয়ে ৩২৬ রান তুলতে সক্ষম হয়।

আইরিশদের ছুড়ে দেওয়া ৩৩২ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাটিং উদ্বোধন করতে আসেন চামু চিভাভা এবং সিকান্দার রাজা। দলীয় ৩২ রানে সিকান্দার রাজাকে ফেরান জন মুনি। স্টারলিংয়ের তালুবন্দি হওয়ার আগে রাজা ব্যক্তিগত ১২ রান করেন।

ইনিংসের নবম ওভারে কুসাকের বলে পোর্টারফিল্ডের হাতে বল তুলে দেন জিম্বাবুয়ের ওপেনার চামু চিভাভা। আউট হওয়ার আগে চিভাভা ৩২ বল খেলে করেন ১৮ রান।

এরপর এগারোতম ওভারে মাসাকাদজাকে ফেরান কেভিন ও’ব্রাইন। উইকেটের পিছনে উইলসনের তালুবন্দি হওয়ার আগে মাসাকাদজা করেন মাত্র ৫ রান। আর ১৭তম ওভারে তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা সলোমন মিরেকে সাজঘরে যেতে বাধ্য করেন ডকরেল।

ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৭৪ রানে টপঅর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে ধুঁকতে থাকা জিম্বাবুয়ে কিছুটা হলেও বিপর্যয় কাটিয়ে উঠার চেষ্টা করে। তবে, ইনিংসের ৩৮তম ওভারে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সপ্তম শতক হাঁকিয়ে জিম্বাবুয়ের দলপতি ব্রেন্ডন টেইলর বিদায় নেন।

ব্যাটিং ক্রিজে টেইলর যতক্ষণ ছিলেন, ততক্ষণ আইরিশ বোলারদের শাসন করেন। ৭৯ বলে শতক হাঁকানো এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান কুসাকের বলে কেভিন ও’ব্রাইনের তালুবন্দি হওয়ার আগে ৯১ বল মোকাবেলা করে ১১টি চার আর ৪টি ছক্কার সাহায্যে ১২১ রান করেন।

শেন উইলিয়ামস এবং পাঁচ হাজারি ক্লাবের টেইলর মিলে ১৪৯ রানের জুটি গড়েন।

দলকে জয়ের দিকে এগিয়ে নিতে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলর শতক হাঁকিয়ে বিদায় নিলে ব্যাটিং ক্রিজের দায়িত্ব পান শেন উইলিয়ামস। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২০তম অর্ধশতক পার করে প্রথম শতকের অপেক্ষায় থাকেন উইলিয়ামস। টেইলরের পর উইলিয়ামস একাই লড়াই চালিয়ে কাঙ্ক্ষিত শতক থেকে মাত্র চার রান দূরে থাকতে আউট হন তিনি।

আউট হওয়ার আগে ৮৩ বলে ৭টি চার আর দুটি ছয়ে উইলিয়ামস করেন ৯৬ রান।

হোবার্টের বেলরিভ ওভালে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার সম্ভাবনা নিয়ে বিশ্বকাপের ৩০তম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস হেরে প্রথম ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামে আয়ারল্যান্ড।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে আয়ারল্যান্ড এড জয়েস আর অ্যান্ডি বালবিরনির ব্যাটে ভর করে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩৩১ রান করেছে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকের দেখা পান জয়েস। আর প্রথম সেঞ্চুরি থেকে তিন রান দূরে থেকে রান আউট হন বালবিরনি। এ দু’জন মিলে ১৩৮ রানের জুটিও গড়েন।

ওয়ানডে ক্যারিয়ারে তৃতীয় শতক হাঁকিয়ে দলকে ভালো অবস্থানে রেখে বিদায় নেন আইরিশ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান এড জয়েস। ইংল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হওয়া জয়েস ৯৮ বলে শতক হাঁকিয়ে ১১২ রান করে আউট হন। আউট হওয়ার আগে তিনি ১০৩ বল খেলে ৯টি চার আর ৩টি ছয় হাঁকান।

আর ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম শতক থেকে মাত্র ৩ রান দূরে থেকে অ্যান্ডি বালবিরনি রান আউট হওয়ার আগে করেন ৯৭ রান। ব্যাটে ঝড় তুলে পানিয়াঙ্গারার করা ৪৩তম ওভারে তিনি ২১ রান তুলে নেন। ইনিংসের শেষ ওভারে দুই রান নিতে গিয়ে রান আউটে কাটা পড়ার আগে ৭৯ বলে ৭টি চার আর ৪টি ছক্কা হাঁকান বালবিরনি।



সর্বশেষ ১২টি:

.